তাহিরপুরে ফেরি নৌকা ডুবে বিজিবি সদস্যের মৃত্যু, অস্ত্র খোয়া গেছে

রবিবার, ২ নভেম্বর ২০১৪

সাজ্জাদ হোসেন শাহ্, তাহিরপুর (সুনামগঞ্জ) থেকে : সীমান্তে টহল শেষে বিওপিতে ফেরার পথে খেয়া (ছোট ফেরি) নৌকা ডুবির ঘটনায় সুনামগঞ্জ-৮ বর্ডার গার্ড বিজিবি ব্যাটালিয়নের এক সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। নিহত বিজিবি সদস্যের নাম বিদর্শন বড়–য়া (৩৫)। জেলার তাহিরপুর উপজেলার টেকেরঘাট কোম্পানির বালিয়াঘাট বিওপির সামনে পাটলাই নদীতে গত শুক্রবার রাত ৮টার দিকে এ খেয়া নৌকা ডুবির ঘটনাটি ঘটেছে। খবর পেয়ে গত শুক্রবার রাতেই সুনামগঞ্জ-৮ বর্ডার গার্ড বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল খন্দকার গোলাম মহিউদ্দিন, উপ-অধিনায়ক মেজর কামরুজ্জামান, তাহিরপুর থানার ওসি আনিসুর রহমান খান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

ব্যাটালিয়ন হেডকোয়ার্টার ও স্থানীয় বিজিবির সূত্রে জানা যায়, উপজেলার সীমান্তবর্তী লাকমা এলাকার বালিয়াঘাট বিওপির ক্যাম্প কমান্ডার নায়েক সুবেদার শাহজাহানের নেতৃত্বে শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে টহলে যায় বিজিবির ৪ সদস্যের টহলদল। টহল শেষে বিওপিতে ফেরার পথে রাত ৮টার দিকে বালিয়াঘাট বিওপির সামনে উত্তর পাড় থেকে দক্ষিণ পাড়ে আসার সময় পাটলাই নদীর মাঝখানে ছোট ফেরি নৌকাটি ডুবে যায়। এ সময় বিজিবির ৩ সদস্য মাঝিসহ সাঁতরিয়ে তীরে উঠতে পারলেও বিজিবির অপর সদস্য বিদর্শন বড়–য়া পানিতে তলিয়ে যান। প্রায় ১৫ মিনিট পর ওই বিজিবি সদস্যের লাশ নদী থেকে স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে বিওপিতে নিয়ে যায়। আহত বিজিবির অন্য ৩ সদস্যকে প্রাথমিকভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় টহলদলের সঙ্গে থাকা ১টি এসএমজি উদ্ধার করা হলেও নদীতে খোয়া গেছে ১টি এসএমজি, ১টি ম্যাগজিন ও ২টি রাইফেল।

কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার জামিল রওশন জানান, নির্ধারিত খেয়া নৌকা রাতে বন্ধ থাকার কারণে টহল দলের সদস্যরা ছোট ফেরি নৌকায় পার হতে গিয়ে এ দুর্ঘটনার শিকার হয়েছে। ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লে. কর্নেল গোলাম মহিউদ্দিন খন্দকার অস্ত্র খোয়া যাওয়ার

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সিলেট সেক্টর কমান্ডার কর্নেল মোহাম্মদ জামাল মাহমুদ সিদ্দীক পিএসসির বক্তব্য জানতে শুক্রবার রাত পৌনে ১০টার দিকে তার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে বিজিবি সদস্যের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে তিনি বলেন, আমি খবর পেয়ে সুনামগঞ্জের উদ্দেশে রওনা করেছি, ঘটনাস্থলে যাবো। অস্ত্র খোয়া যাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, অস্ত্র খোয়া গেছে জানতে পেরছি, কিন্তু এ মুহ‚র্তে বলা সম্ভব হচ্ছে না কটি অস্ত্র খোয়া গেছে।

সুনামগঞ্জ-৮ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল খন্দকার গোলাম মহিউদ্দিনের সঙ্গে গতকাল শনিবার সকালে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, স্থানীয় জনগণ, পুলিশ ও বিজিবির সহযোগিতায় খোয়া যাওয়া অস্ত্র গতকাল সকালে পাওয়া গেছে।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj