ফ্যাব্রিগাসকে নিয়ে বিস্মিত মরিনহো

সোমবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৪

অনেক নাটকের পর বার্সেলোনা থেকে এই মৌসুমে চেলসিতে যোগ দিয়েছেন স্প্যানিশ মিডফিল্ডার। ফ্যাব্রিগাস চেলসিতে যোগ দেয়ায় অনেকে অবাক হয়েছিলেন- কারণ তিনি এক সময় বলেছিলেন যে, চেলসিতে যোগ দিলে যাতে তাকে গুলি করে মেরে ফেলা হয়। কিন্তু চেলসি কোচ হোসে মরিনহোর কাছে বিস্ময়টা অন্যরকম। স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনা ফ্যাব্রিগাসের মানের একজন খেলোয়াড় বিক্রি করে দিয়েছে সেটা তিনি ভাবতেই পারেননি।

চেলসির এবারের দল বদলের বাজারের অন্যতম লক্ষ্য ছিল ফ্যাব্রিগাস। এক সময় আর্সেনাল মাতানো এই মিডফিল্ডারের সক্ষমতা প্রিমিয়ার লিগে প্রমাণিত। বার্সেলোনা তার যুব একাডেমির এই আবিষ্কারকে অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে আবার নিজেদের দলে নিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু বার্সেলোনায় তিনি কখনো নিজের সেরাটা দিতে পারেননি। কয়েক মৌসুম কাটানোর পর আবারো প্রিমিয়ার লিগে ফিরেছেন। চেলসিতে ২৭ মিলিয়ন পাউন্ডে যোগ দেয়া সেস ফ্যাব্রিগাসকে দলে পেয়ে অনেক উচ্ছ¡সিত হয়েছেন কোচ হোসে মরিনহো। একই সঙ্গে তার মানের একজন খেলোয়াড়কে বার্সেলোনা ছেড়ে দেয়ায় অনেক বিস্মিত হয়েছেন। ২৭ বছর বয়সী এই মিডফিল্ডার ন্যু ক্যাম্পে থাকবেন বলেই মনে করেছিলেন তিনি। মরিনহো বলেন, আমি মনে করেছিলাম সে বার্সেলোনাতেই থাকতে যাচ্ছে। আমি ভেবেছিলাম বার্সেলোনাতে জাভির বিকল্প হিসেবে সে নিজের জায়গা করে নিতে যাচ্ছে। আমার জন্য এটা বিস্ময় ছিল না যে, আর্সেনালে যাচ্ছে না বরং সে যে বার্সেলোনা ছেড়ে এসেছে সেটাই আমার জন্য বিস্ময়কর ছিল। সেস এর প্রশংসা করে তিনি বলেন, তার বয়স এখন ২৭ এবং খেলোয়াড়দের জন্য এটা সেরা সময়। শারীরিকভাবে সে এখন সর্বোচ্চ সক্ষমতায় অবস্থান করছে। মানসিকভাবে সে বেশ স্থির। তার কৌশলগত শিক্ষা ও বেশ ভালো। সেস এর পরিসংখ্যানগুলো অসাধারণ। যেভাবে সে গোলে সহায়তা করে ও দলে যে পরিমাণ সক্ষমতা নিয়ে আসে তা অতুলনীয়। ফ্যাব্রিগাস চেলসির হয়ে প্রথম গোল করেন চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শালকে জিরো ফোরের বিপক্ষে। এই গোলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ড্র নিশ্চিত হয় চেলসির। এছাড়া চেলসির হয়ে চার ম্যাচে ছয়টি গোলে সহায়তা করেছে তিনি। এমন একজন খেলোয়াড়কে নিয়ে কোচ উচ্ছ¡সিত হতেই পারেন। হোসে মরিনহোর মতো কুশলী কোচ সেস এর মধ্য থেকে সেরাটা বের করে আনার ক্ষমতা তো রাখেনই। আর ফ্যাব্রিগাস যে বিভিন্ন বৈচিত্র্যময় পজিশনে খেলে নিজের সক্ষমতা প্রমাণ করেছেন। তিনি বলেন, সেস যে কোনো পজিশনে খেলতে পারে এবং সে এজন্যই অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এমন কি বার্সেলোনাতেও সে বিভিন্ন পজিশনে খেলেছে, কখনো সে ফলস নাইন হিসেবে খেলেছে, কখনো বা লেফট উইংয়ে খেলেছে। ইন্টারনেট।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj