বাজিতপুরে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত নিহত

আগের সংবাদ

আওয়ামী লীগের যৌথসভা শনিবার

পরের সংবাদ

সপ্তাহ খানেকের মধ্যে চালের দাম কমবে: বাণিজ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত হয়েছে: জানুয়ারি ১১, ২০১৯ , ৭:১১ অপরাহ্ণ | আপডেট: জানুয়ারি ১১, ২০১৯, ১০:১২ অপরাহ্ণ

নব-নিযুক্ত বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, ‘নির্বাচনের জন্য মাঝখানে ২/৩ দিনের যানবাহনে সমস্যা ছিল। এ কারণে চালের দাম বেড়েছে। আমি ও খাদ্যমস্ত্রী বৃহস্পতিবার মিল মালিক, ধান ব্যবসায়ীসহ অন্যদের সঙ্গে বসেছিলাম। তারা কথা দিয়েছে সপ্তাহ খানেকের মধ্যে চালের দাম কমে আসবে।’

তিনি বলেন, ‘গত মাস শেষের পর এ মাসে কিন্তু চালের দাম বাড়েনি। এছাড়া মোটা চালের দাম স্থিতিশীল রয়েছে। চিকন চালের দাম কিছুটা বেড়েছে। আমাদের দেশের সাধারণ মানুষ মোটা চাল খায়। এ কারণে আমাদের সব সময় টার্গেট থাকে মোটা চালের দাম স্থিতিশীল রাখা। সেটা আছে। তারপরও আমরা চালের দাম নিয়ন্ত্রণ করতে চেষ্টা করছি। আশা করি সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। আমাদের গুদামগুলোতে প্রচুর পরিমানে ধান-চাল মজুদ রয়েছে। গত বছর যা মজুদ ছিলো, এ বছর তার চেয়ে অনেক বেশি মজুদ আছে। সুতরং চাল নিয়ে চিন্তার কারণ নেই।’

আজ শুক্রবার দুপুরে টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধির বেদীতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর সাংবাদিকদের কাছে এসব কথা বলেন তিনি।

এ সময় মন্ত্রী বাণিজ্য ঘাটতি প্রসঙ্গে বলেন, ‘গত ১০ বছরে বাণিজ্যে অনেক উন্নতি হয়েছে। এখন আমাদের চীন ও ভারতের বাজার ধরার ইচ্ছা রয়েছে। এ দুটি দেশ আড়াইশ কোটি মানুষের দেশ। গার্মেন্টস সেক্টরে রপ্তানী বাণিজ্য ২০২১ সালের মধ্যে ৬০ বিলিয়ন ডলার টার্গেট করেছি। আশা করছি আমরা এ দুই দেশের বাজার ধরতে পারলে রপ্তানিতে আমদের টার্গেট পুরণ হবে। পাশাপাশি ইন্দোনেশিয়া ২৫ কোটি মানুষের দেশ। সেখানে আমরা রপ্তানি বাণিজ্য করার উদ্যোগ নিয়েছি। এটি সফল হলেও আমাদের বানিজ্য ঘাটতি কমে আসবে।’

এর আগে দুপুরে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া পৌছে বাণিজ্যমন্ত্রী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিসৌধের বেদীতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। পরে তিনি পবিত্র ফাতেহা পাঠ ও বঙ্গবন্ধুর রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া মোনাজাত করেন।

এ সময় গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলী খান, টুঙ্গিপাড়া পৌরসভার মেয়র শেখ আহম্মেদ হোসেন মীর্জা সহ গোপালগঞ্জ জেলা, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পরে মন্ত্রী টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধু সমাধিসৌধের বঙ্গবন্ধু ভবনে প্রবেশ করেন। সেখানে রক্ষিত পরিদর্শণ বইতে মন্তব্য লিখে স্বাক্ষর করেন।