দুই শিক্ষার্থী নিহত : ম্যাজিস্ট্রেটসহ দুজনের সাক্ষ্য

আগের সংবাদ

বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগ দিলেন অভিনেত্রী ঈশিতা

পরের সংবাদ

চট্টগ্রামে পুলিশ বক্স ভাংচুর শ্রমিকদের

প্রকাশিত হয়েছে: নভেম্বর ১৪, ২০১৮ , ৭:০৬ অপরাহ্ণ | আপডেট: নভেম্বর ১৪, ২০১৮, ৭:০৬ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রামের পটিয়া-আনোয়ারা-বাঁশখালী সড়কের চৌমুহনী এলাকায় পুলিশ বক্স ভাংচুর ও ট্র্যাফিক পুলিশের গাড়িতে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

আজ বুধবার দুপুরে আনোয়ারা-চাতরী-চৌমুহনী বাজার এলাকায় এক কাভার্ডভ্যান চালককে একজন ট্র্যাফিক সার্জেন্ট মারধর করলে এ ঘটনা ঘটে। পরে কাভার্ডভ্যান চালক রাস্তার মাঝখানে গাড়িটি রেখে দেয়।

এ সময় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে ট্র্যাফিক বক্সে হামলা ও ভাংচুর চালায় এবং ট্র্যাফিক পুলিশের ব্যবহৃত মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেয়।

আনোয়ারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দুলাল মাহমুদ জানান, চাতরী চৌমুহনী বাজার এলাকায় পরিবহন শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ এবং ট্র্যাফিক বক্সে হামলার সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা গিয়ে মোটরসাইকেলের আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, চাতরী-চৌমুহনী এলাকায় চৌরাস্তার মোড়ে একটি কাভার্ড ভ্যানকে থামার সংকেত দেন একজন ট্র্যাফিক পুলিশের এএসআই আনোয়ার। চালক রুবেল গাড়ি না থামানোয় এক পর্যায়ে এএসআই আনোয়ার চালক রুবেলকে পুলিশ বক্সে নিয়ে আটকে রাখেন। এরপর কাগজপত্র তল্লাশিকালে তার সঙ্গে পুলিশের তর্কাতর্কি হয়। একপর্যায়ে রুবেলকে চড়থাপ্পড় মারতে থাকেন ট্র্যাফিক পুলিশের সদস্য ও সোর্স। চালকের ওপর মারধর চলাকালে ওই চালকের সহকারী কাভার্ড ভ্যানটি সড়কের ওপর আড়াআড়ি করে রাখলে সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে।
এ সময় বিভিন্ন গাড়ির চালক ও স্থানীয় লোকজন বিক্ষোভ করেন এবং ট্র্যাফিক পুলিশের বক্সে হামলা চালান।

এ সময় পুলিশের একটি মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দিলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। চাতরী-চৌমুহনী বাজারের চারপাশে সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে পড়লে শত শত যান আটকা পড়ে। খবর পেয়ে আনোয়ারার পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়।

পরে চট্টগ্রাম শহর থেকে অতিরিক্ত পুলিশ আনা হলে দুইঘণ্টা পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।