৩০ অক্টোবরের পর যেকোনো দিন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা

আগের সংবাদ

জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষায় ১৩ দফা সিদ্ধান্ত

পরের সংবাদ

মেধার ভিত্তিতে যুক্তরাষ্ট্রে আসুন, অবৈধভাবে নয়: ট্রম্প

প্রকাশিত হয়েছে: অক্টোবর ১৫, ২০১৮ , ৬:৩০ অপরাহ্ণ | আপডেট: অক্টোবর ১৫, ২০১৮, ৬:৩০ অপরাহ্ণ

ট্রাম্প প্রশাসনের কড়া অভিবাসন নীতির সমালোচনা হচ্ছে বিশ্বজুড়ে। এবার সেই অভিবাসন নীতি নিয়েই মুখ খুললেন প্রেসিডেন্ট নিজেই। জানালেন, তিনি চান অন্য দেশ থেকে যারা যুক্তরাষ্ট্রে আসছেন বা আসতে চান, তারা মেধার ভিত্তিতে আসুন। অবৈধভাবে সীমান্ত পেরিয়ে নয়।

অভিবাসন নীতি নিয়ে তার কঠোর মনোভাবের জন্য বিশ্বের নানা প্রান্তে সমালোচিত হচ্ছেন ট্রাম্প। বিশেষ করে অবৈধ অভিবাসী বাবা-মায়ের থেকে তাদের সন্তানরা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ায় দেশে-বিদেশে প্রবল নিন্দার ঝড় ওঠেছে। রোববার হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকরা এ বিষয়ে প্রশ্ন করেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্টকে।

সেখানেই প্রশ্নের জবাবে ট্রাম্প বলেন, মেধার জোরে যুক্তরাষ্ট্রে কেউ থাকতে এলে তাতে তার প্রশাসনের কোন আপত্তি নেই। ট্রাম্পের কথায়, সীমান্ত নিয়ে আমি খুবই কড়া। সেটা সবাই জানে। আমরা চাই, বিদেশ থেকে এখানে যারা আসবেন, তারা বৈধভাবে সীমান্ত পেরিয়ে আসবেন এবং মেধার ভিত্তিতে এ দেশে আসুন। আমরা যেটা চাই সেটা হলো মেধা। অর্থাৎ উচ্চশিক্ষিত এবং তথ্যপ্রযুক্তি কর্মীদের দিকেই স্পষ্ট ইঙ্গিত করেছেন ট্রাম্প।

ট্রাম্প জানিয়েছেন, ৩৫ বছর পরে অনেক গাড়ির কোম্পানি তাদের দেশে ব্যবসা করতে আসছে। তিনি বলেন, আমি চাই অনেক মানুষ এ দেশে এসে থাকুন। অনেক ভাল ভাল গাড়ির সংস্থা এ দেশে আসছে। ৩৫ বছর পরে এটা সম্ভব হয়েছে। উইসকনসিনে এমনই একটি সংস্থা বিশাল কারখানা খুলছে। তাই আমরা চাই মেধার জোরে বিদেশ থেকে অনেকেই এখানে আসুন যারা আমাদের সাহায্য করতে পারবেন।

ওই সাক্ষাৎকারে আরও একবার ‘চেইন মাইগ্রেশন’ নীতির সমালোচনা করেছেন ট্রাম্প। তিনি বলেন, এটা খুবই খারাপ একটা নীতি। অনেকেই আমার সঙ্গে সম্মত হবেন। এ দেশের বেশির ভাগ মানুষই বলবেন যে, তারা চান না অপরাধীরা এ দেশে ঢুকুক। যারা আমাদের কোনও সাহায্য করতে পারবে না। তাই আমি চাই কড়া অভিবাসন নীতি।

একই সঙ্গে মার্কিন অর্থনীতির প্রশংসা করেছেন ট্রাম্প। তিনি জানিয়েছেন, অর্থনৈতিক বিচারে বিশ্বের এক নম্বর দেশ এখন আমেরিকাই। চীন বা অন্য দেশের সঙ্গে তুলনা করে দেখুন। আমরাই সবার সেরা। সে জন্যই প্রচুর মানুষ এ দেশে আসতে চান। আর তার জন্য সীমান্তে আমাদের রক্ষীরা দারুণ কাজ করছেন।