মেয়েরা খেলায় খুব সাহসী ভূমিকা রাখে : প্রধানমন্ত্রী

আগের সংবাদ

সিআইডির নতুন ইউনিটের অনুমোদন

পরের সংবাদ

হৃত্বিকের শাস্তি পাওয়া উচিত: কঙ্গনা

প্রকাশিত হয়েছে: অক্টোবর ১১, ২০১৮ , ১০:৩৭ অপরাহ্ণ | আপডেট: অক্টোবর ১১, ২০১৮, ১০:৩৭ অপরাহ্ণ

সম্প্রতি বলিউডের জনপ্রিয় পরিচালক বিকাশ বহেলের বিরুদ্ধে ‘মি টু ক্যাম্পেইনে’ মুখ খুলেছেন কঙ্গনা রানাওয়াত। বলিউড অভিনেত্রী বলেন, ‘কুইন’-এর শুটিংয়ের সময় বিকাশ বহেল মদ্যপ অবস্থায় বার বার তাকে জড়িয়ে ধরতেন। ‘তোমাকে আমার ভাল লাগে’ বলেও ‘কুইন’ অভিনেত্রীকে জড়িয়ে ধরা হত বলে দাবি করেন কঙ্গনা। কিন্তু, বিকাশ বহেল অনেক চেষ্টা করেও কঙ্গনাকে কোনোভাবে হেনস্থা করতে পারেননি বলেও দাবি করেন বলিউড অভিনেত্রী। আর এবার সেই কঙ্গনা রানাওয়াত ‘মি টু’ ঝড়ে টেনে আনলেন হৃত্বিক রোশনের নাম।

জিনিউজ পত্রিকার খবরে বলা হয়, কঙ্গনা বলেন, বিকাশ বহেলের মত অনেক মানুষ ইন্ডাস্ট্রির আনাচে-কানাচে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছেন। তাদের খুঁজে বের করে আসল মুখ প্রকাশ্যে আনতে হবে। নারীদের জন্য সিনেমা জগতকে আরও নিরাপদ করতে হবে। যাতে কোনো নারীর সঙ্গে কেউ অসভ্যতা করতে না পারেন, এবার সেদিকে নজর দিতে হবে বলেও জানান কঙ্গনা। তবে এখানেই থেমে থাকেননি বলিউড ‘কুইন’।

তিনি আরও বলেন, বলিউডে এমন অনেক মানুষ রয়েছেন, যারা বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে কিংবা কাজ পাইয়ে দেওয়ার নাম করে অভিনেত্রীদের সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি করেন। তাদের ব্যবহার করেন। এবার সেই সমস্ত মানুষদেরও টেনে বের করতে হবে বলে খোঁচা দেন কঙ্গনা। আর এরপরই হৃত্বিক রোশনের নাম নেন ‘মনিকর্ণিকা’-র রানি লক্ষ্মীবাই।

কঙ্গনা বলেন, হৃত্বিক তার সঙ্গে যা করেছেন, তার জন্য তার শাস্তি পাওয়া উচিত। তার কথায়, বিয়ে করে বাড়িতে স্ত্রী-কে সাজিয়ে রেখে কম বয়সী অভিনেত্রীদের সঙ্গে বেশ কিছু অভিনেতা যা করেন, তা অত্যন্ত অন্যায়। তাই এবার সময় এসেছে, সেই সব মানুষকেও শাস্তি দেওয়ার। অর্থাৎ হৃত্বিকের নাম করেই ফের আরও একবার রাকেশ রোশন-পুত্রকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে দেন বলিউড ‘কুইন’।

প্রসঙ্গত, বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে হৃত্বিক তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক তৈরি করেন। তার নগ্ন ছবি প্রকাশ্যে আনেন বলে ‘কহো না প্যার হ্যায়’-র অভিনেতার বিরুদ্ধে সম্প্রতি তোপ দাগেন কঙ্গনা। যা নিয়ে বলিউডে জোর জল্পনা শুরু হয়। তবে কঙ্গনার অভিযোগের মুখে পড়ে তার বিরুদ্ধে পাল্টা তোপ দাগেন হৃত্বিক। এমনকী, কঙ্গনার অভিযোগের ভিত্তিতে হৃত্বিক তাকে আইনি নোটিসও পাঠান। যা নিয়ে বি টাউনে এক সময় জোর শোরগোল শুরু হয়ে যায়।