ইরানে মদপানে ৪২ জনের মৃত্যু

আগের সংবাদ

সূচক বাড়লেও কমেছে লেনদেন

পরের সংবাদ

দক্ষিণ চীন সাগরে চীন-মার্কিন রণতরী মুখোমুখি

প্রকাশিত হয়েছে: অক্টোবর ২, ২০১৮ , ৮:৩৩ অপরাহ্ণ | আপডেট: অক্টোবর ২, ২০১৮, ৮:৩৩ অপরাহ্ণ

দক্ষিণ চীন সাগরের বিতর্কিত স্পার্টলি দ্বীপপুঞ্জের কাছে গত রবিবার মার্কিন জাহাজ মুক্ত নেভিগেশন অপারেশন পরিচালনা করার সময় চীনা একটি যুদ্ধজাহাজের মুখোমুখি অবস্থান নেয়।

সিএনএন এর এক প্রতিবেদনে মার্কিন প্রতিরক্ষা কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে বলা হয়েছে, তাদের জাহাজটি ‘সংঘর্ষ এড়াতে’ রণকৌশল প্রয়োগ করেছে।

প্রশান্ত মহাসাগরীয় মার্কিন নৌবাহিনীর মুখপাত্র ক্যাপ্টেন চার্লস ব্রাউন ‘সিএনএন’কে জানান, দক্ষিণ চীন সাগরের গ্যাভেন রিফের নিকটে চীনা বিধ্বংসী লুয়াং যুদ্ধজাহাজটি মার্কিন রণতরীর সঙ্গে বিপজ্জনক ও অপেশাদারি অবস্থান নিয়েছিল।

তিনি আরো বলেন, মার্কিন জাহাজকে ক্রমাগত আক্রমণাত্মক হুমকিস্বরূপ মহড়া চালায় চীনা রণতরীটি। এটি মার্কিন জাহাজটির প্রায় ৪৫ ইয়ার্ডের কাছাকাছি চলে এসেছিল। ‘সংঘর্ষ এড়াতে’ রণকৌশল অবলম্বন করেছি। আমাদের বাহিনী আকাশে উড়বে, পানিতে ভাসবে, কার্যক্রম পরিচালনা করবে যতটা আন্তর্জাতিক আইন স্বীকৃত।

হাওয়াই প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও মার্কিন নৌবাহিনীর সাবেক ক্যাপ্টেন কার্ল সুস্টার বলেন, মার্কিন ক্যাপ্টেন চীনা জাহাজের আচরণে খুবই উদ্বিগ্ন হয়েছিল। চীনা জাহাজের আক্রমণাত্মক আচরণে সেকেন্ডের মধ্যে সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে যে কোনো ধরনের সংঘর্ষ এড়াতে।

দক্ষিণ চীন সাগরে চীনের সরকার দ্বীপপুঞ্জ তৈরি করেছে এবং বিতর্কিত সামুদ্রিক এলাকাতে সামরিক স্থাপনা প্রতিষ্ঠা করেছে। চীনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র উ কিয়ান মঙ্গলবার বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র বারবার দক্ষিণ চীন সাগরের এই দ্বীপপুঞ্জের কাছে যুদ্ধজাহাজ পাঠাচ্ছে। যা চীনের সার্বভৌমত্ব ও নিরাপত্তার জন্য মারাত্মক হুমকিস্বরূপ।

তিনি আরো বলেন, চীনা সেনাবাহিনী দৃঢ়ভাবে প্রতিরক্ষা দায়িত্ব পালন করবে এবং সার্বভৌমত্ব ও আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতা রক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবে।