নাইজেরিয়ায় জলদস্যুদের কবলে ১২ নাবিক

আগের সংবাদ

আগামী ডিসেম্বরেই জাতীয় সংসদ নির্বাচন: আইনমন্ত্রী

পরের সংবাদ

অবৈধ সম্পদের কারণে স্ত্রীসহ ফাঁসলেন বাপেক্সের জিএম

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৮ , ৯:১৮ অপরাহ্ণ | আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৮, ৯:১৮ অপরাহ্ণ

সোয়া ১ কোটি টাকা অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম এক্সপ্লোরেশন অ্যান্ড প্রোডাকশন কোম্পানি লিমিটেডের (বাপেক্স) জেনারেল ম্যানেজার এ কে এম আনোয়ারুল ইসলাম ও তার স্ত্রী ফরিদা ইয়াসমিনের বিরুদ্ধে চার্জশিট অনুমোদন দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

রোববার দুদকের প্রধান কার্যালয় থেকে তাদের বিরুদ্ধে চার্জশিট অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। শিগগিরই চার্জশিট আদালতে দাখিল করা হবে বলে দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা (উপ-পরিচালক) প্রনব কুমার ভট্টাচার্য্য রাইজিংবিডিকে নিশ্চিত করেছেন।

গত ৫ জুন রাজধানীর রমনা মডেল থানায় দুদকের উপ-পরিচালক মো. হেলাল উদ্দিন শরীফ বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

জানা যায়, আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে জ্ঞাত আয়ের উৎসের সঙ্গে অসঙ্গতিপূর্ণভাবে ১ কোটি ৮ লাখ ৪৩ হাজার ৭৫২ টাকার সম্পদ অর্জন করে নিজেদের দখলে রেখেছেন। আসামি ফরিদা ইয়াসমিন ২০০৫-০৬ করবর্ষে রিটার্ন দাখিল ‍শুরু করেন। ২০০৫-০৬ কর বছর থেকে ২০১৫-১৬ কর পর্যন্ত ৪৯ লাখ ৮৫ হাজার ৫৫২ টাকা আয় করেছেন এবং এ সময়ে তিনি ৬ লাখ ২২ হাজার ৩১২ টাকা ব্যয় করেছেন। কিন্তু দুদকের অনুসন্ধানে ফরিদা ইয়াসমিনের নামে স্থাবর, অস্থাবর ও গোপনসহ মোট ১ কোটি ৫২ লাখ ৩ হাজার ১৬৪ টাকার সম্পদ পাওয়া যায়।

অন্যদিকে আসামি এ কে এম আনোয়ারুল ইসলাম তার স্ত্রী ফরিদা ইয়াসমিনের নামে প্রাপ্ত ১ কোটি ৮ লাখ ৪৩ হাজার ৭৫২ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনে সহযোগিতাসহ ৪ লাখ টাকার সম্পদ গোপন করতে মিথ্যা তথ্য প্রদানে সহযোগিতা করেছেন। এর মধ্যে ৪ লাখ টাকার সম্পদ কমিশনে দাখিলকৃত সম্পদ বিবরণীতে প্রদর্শন না করে মিথ্যা তথ্য দিয়েছেন। অর্থাৎ আসামি ফরিদা ইয়াসমিন এবং তার স্বামী বাপেক্স এর জেনারেল ম্যানেজার এ.কে.এম আনোয়ারুল ইসলাম এর বিরুদ্ধে ৪ লাখ টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করে দুদকে মিথ্যা তথ্য প্রদানসহ ১ কোটি ৮ লাখ ৪৩ হাজার ৭৫২ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন এবং দখলে রেখে দুর্নীতি দমন কমিশন আইন, ২০০৪ এর ২৬(২) ও ২৭ (১) ধারা এবং দণ্ডবিধির ১০৯ ধারায় চার্জশিট দাখিলের অনুমোদ দিয়েছে দুদক।

প্রসঙ্গত, তদন্তকারী কর্মকর্তা মামলা তদন্তকালে বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে ১ কোটি ৮ লাখ ৪৩ হাজার ৭৫২ টাকার মধ্যে ৭৭ লাখ ৭০ হাজার ৮২৭ টাকার স্থাবর সম্পদ ক্রোক করেছেন।