দুই কোম্পানির শেয়ার লেনদেন রবিবার

আগের সংবাদ

আগামীকাল দেশের বাজারে আসছে ভিভোর নতুন ফোন

পরের সংবাদ

নতুন তিন আইফোনে বায়োনিক চিপস

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৮ , ৪:২০ অপরাহ্ণ | আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৮, ৪:২০ অপরাহ্ণ

অ্যাপল ভক্তদের জন্য সুখবর নিয়ে এসেছে মার্কিন প্রতিষ্ঠান অ্যাপল। এগুলো হলো আইফোন এক্সএস, আইফোন এক্সএস ম্যাক্স এবং আইফোন এক্সআর। এগুলোতে ব্যবহৃত হয়েছে সব উন্নত প্রযুক্তি। রয়েছে রেটিনা ডিসপ্লেসহ বায়োনিক চিপ।

বুধবার (১৩ সেপ্টেম্বর) ক্যালিফোর্নিয়ার স্টিভ জবস থিয়েটারে একে একে তিনটি ফোন প্রকাশ্যে আনে অ্যাপল।

আইফোন এক্সএসের দাম ৯৯৯ ডলার। আইফোন এক্সএস ম্যাক্সের দাম ১০৯৯ ডলার এবং আইফোন এক্সআরের দাম ৭৪৯ ডলার।

নতুন আনফোনে রয়েছে আরও ফাস্ট প্রসেসর আরও উজ্জ্বল ছবি তোলার ক্ষমতা। তিনটি ফোনেই রয়েছে টপ নচ। আর সব থেকে বড় কথা, এই প্রথম আইফোনে ব্যবহার করা যাবে ডুয়েল সিম।

অনুষ্ঠানে প্রথমে লঞ্চ হয় অ্যাপল ওয়াচ ফোর। এর পর লঞ্চ হয় আইফোন এক্সএস ও আইফোন এক্সএস এবং আইফোন এক্সএস ম্যাক্স।

আইফোন এক্সএসে আছে ৫.৮ ইঞ্চির রেটিনা ডিসপ্লে। আইফোন এক্সএস ম্যাক্সে আছে ৬.৫ ইঞ্চির রেটিনা ডিসপ্লে। দুটি ফোনেই রয়েছে টপ নচ ও থ্রিডি টাচ। আইফোন এক্সএস ম্যাক্স এখন পর্যন্ত সব থেকে বড় ডিসপ্লে ওয়ালা আইফোন।

নতুন আইফোনে এ১২ বায়োনিক চিপ ব্যবহার করেছে অ্যাপেল। যাতে ব্যাবহার হয়েছে ৭ ন্যানোমিটার টেকনোলজি। একটি চিপে মোট ৬৭০ কোটি ট্রানজিস্টর রয়েছে। আরো আছে রয়েছে ৬ কোর সিপিইউ। যার মধ্যে ২টি কোর হাই পারফর্মেন্স। সঙ্গে ৪ কোর জিপিইউ ব্যবহার করেছে অ্যাপল।

অ্যাপল দাবি করছে নতুন চিপসেট আগের থেকে অনেক দ্রুত কাজ করবে। যার ফলে চমকে যাওয়ার মতো সব জিনিসপত্র করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা। গেমিং কনসোলের মতো গ্রাফিক্স এবার মিলবে আইফোনের পর্দাতেই।

আইফোন এক্সএস ও আইফোন এক্সএস ম্যাক্সে আছে ডুয়েল রিয়ার ক্যামেরা সেট আপ। একটি টেলি ও একটি ওয়াইড ক্যামেরা ব্যবহার করেছে অ্যাপেল। দুটিই ১২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। এই ক্যামেরার মাধ্যমে দুর্দান্ত সব ছবি তোলা যাবে।

ছবি তোলার পর নিয়ন্ত্রণ করা যাবে ডেফথ অব ফিল্ড। যা বিশ্বে প্রথম বলে দাবি অ্যাপলের। সামনে রয়েছে ৭ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। সঙ্গে ফেস রেকগনিশনের যাবতীয় সরঞ্জাম।

ভিডিও রেকর্ডিংয়েও বিশেষ জোর দিয়েছে অ্যাপল। নতুন আইফোনে তোলা যাবে ফোরকে মানের ভিডিও। এজন্য ফোনের চারদিকে থাকা চারটি মাইক্রোফোনকে কাজে লাগিয়েছে অ্যাপল। এছাড়া ফোনের স্পিকারের আওয়াজ আরও ব্যাপ্ত ও শ্রুতিমধুর হবে বলে জানিয়েছে তারা।

মেশিন লার্নিং ও আগমেন্টেড রিয়্যালিটির জন্যও এই চিপ বিশেষ ভাবে ডিজাইন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে অ্যাপল।

আইফোন এক্সএস ও আইফোন এক্সএস ম্যাক্সের ফ্রেম তৈরি হয়েছে ইস্পাত দিয়ে। অ্যাপলের দাবি, যথাসম্ভব পরিবেশবান্ধবভাবে তৈরি করা হয়েছে নতুন আইফোন।

এই প্রথম আইফোনে সংযোজন করা হয়েছে ডুয়েল স্লট। কিন্তু সিম স্লট থাকবে একটিই। অন্য নম্বরটি ব্যবহার করতে হবে ই-সিমের মাধ্যমে। এই প্রযুক্তিতে একটি কিউআর কোড স্ক্যান করলেই ফোনে ইনস্টল হয়ে যাবে সিম।

আইফোন এক্সআর-এ ৬.১ ইঞ্চির লিকুইড রেটিনা ডিসপ্লে। এই ফোনে একটিই রিয়ার ক্যামেরা ব্যবহার করেছে অ্যাপল। তবে তাতে ডুয়াল রিয়ার ক্যামেরার মতোই কাজ হবে বলে দাবি অ্যাপলের।

এই ফোনে ওলিড ডিসপ্লের বদলে এলসিডি ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে। ফলে বেশ কিছুটা কমেছে দাম। নতুন ফোনের র‌্যাম ও ব্যাটারি ক্যাপাসিটি জানায়নি অ্যাপল।

 

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা