সরকার দেশকে গৃহযুদ্ধের দিকে ঠেলে দিচ্ছে: রিজভী

আগের সংবাদ

অক্টোবরে পাস হবে সংশোধিত শ্রম আইন

পরের সংবাদ

নেপালকে গোলবন্যায় ভাসিয়ে ফাইনালে মালদ্বীপ

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৮ , ৭:০৩ অপরাহ্ণ | আপডেট: সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৮, ৭:০৩ অপরাহ্ণ

নেপালকে গোলবন্যায় ভাসিয়ে ফাইনালে উঠল মালদ্বীপ। বুধবার সাফ সুজুকি কাপের প্রথম সেমিফাইনাল ম্যাচে মালদ্বীপ জয় পেয়েছে ৩-০ গোলে। টুর্নামেন্টের ফাইনাল ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর। ফাইনাল ম্যাচে মালদ্বীপ প্রতিপক্ষ হিসাবে কাকে পাবে তা আজই নির্ধারিত হবে। সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় দ্বিতীয় সেমিফাইনাল ম্যাচে ভারতের মুখোমুখি হবে পাকিস্তান।

মালদ্বীপ এবার চতুর্থবারের মতো সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে উঠল। ২০০৮ সালে তারা চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। আর ১৯৯৭, ২০০৩ ও ২০০৯ সালে তারা রানার্স আপ হয়েছিল। অন্যদিকে, সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে প্রথমবারের মতো ফাইনালে খেলার সুযোগ এসেছিল নেপালের সামনে। কিন্তু সেই সুযোগটি তারা কাজে লাগাতে পারল না।

এদিন বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে বল দখলের লড়াইয়ে এগিয়ে ছিল নেপাল। ৬৭ শতাংশ সময় ধরে বল নিয়ন্ত্রণে রাখে তারা। আর ৩৩ শতাংশ সময় ধরে বল নিয়ন্ত্রণে রাখে মালদ্বীপ। নেপাল টার্গেটে শট নেয় চারটি। আর মালদ্বীপ টার্গেটে শট নেয় সাতটি।

ম্যাচের শুরুতেই এগিয়ে যায় মালদ্বীপ। ম্যাচের নবম মিনিটে গোলটি করেন আকরাম আব্দুল ঘানি। ম্যাচের প্রথমার্ধ শেষে মালদ্বীপ ১-০ গোলে এগিয়ে ছিল। প্রথম গোলটি হজম করার পর নেপাল ম্যাচে ফেরার আপ্রাণ চেষ্টা করেছে। কিন্তু পারেনি।

ম্যাচের শেষ দিকে মুহূর্তের মধ্যেই দুইটি গোল করে মালদ্বীপ। দুইটি গোলই করেন ইব্রাহিম ওয়াহিদ। দুইটি গোলই প্রায় একই কায়দায় করেন তিনি। ডি-বক্সের মধ্যে বল পেয়ে জোরালো শটে বল জালে পৌঁছে দেন তিনি। ৮৪ ও ৮৬তম মিনিটে গোল দুইটি করেন তিনি।

গ্রুপ ‘এ’ থেকে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমিফাইনালে উঠেছিল নেপাল। আর গ্রুপ ‘বি’ থেকে গ্রুপ রানার আপ হয়ে সেমিফাইনালে ওঠে মালদ্বীপ। ‘এ’ গ্রুপ থেকে দুর্ভাগ্যজনকভাবে সেমিফাইনালে উঠতে পারেনি বাংলাদেশ। ছয় পয়েন্ট নিয়েও গোল ব্যবধানে পিছিয়ে থাকায় গ্রুপ পর্ব থেকেই বাদ পড়েছে স্বাগতিকরা।

মালদ্বীপ মাত্র একটি ম্যাচ ড্র করেই সেমিফাইনালে ওঠে। গ্রুপ পর্বে তারা শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র করেছিল ও ভারতের বিপক্ষে ২-০ গোলে হেরেছিল। গ্রুপ পর্ব শেষে মালদ্বীপ ও শ্রীলঙ্কার পয়েন্ট ছিল এক করে। দুই দলের গোল ব্যবধানও ছিল সমান। তাই টসের মাধ্যমে তাদের সেমিফাইনালে ওঠার ভাগ্য নির্ধারণ হয়। টসের মাধ্যমে শেষ চারে ওঠে মালদ্বীপ।