লিবিয়া উপকূলে নৌকাডুবিতে ১০০ অভিবাসীর মৃত্যু

আগের সংবাদ

শিশু গৃহকর্মী নির্যাতন মামলায় সোনিয়া কারাগারে

পরের সংবাদ

নিজের ঘরেই ঐক্য নাই, বিএনপি করবে জাতীয় ঐক্য

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৮ , ৬:৪৫ অপরাহ্ণ | আপডেট: সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৮, ৬:৪৫ অপরাহ্ণ

 

বিএনপি নিজেই ঐক্যবদ্ধ নয় দাবি করে দলটির জাতীয় ঐক্য গড়ার চেষ্টাকে কটাক্ষ করেছেন ক্ষমতাসীন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। ‘দেশের সবচেয়ে বড় দল’ আওয়ামীকে ছাড়া কোনো ধরনের জাতীয় ঐক্যের চেষ্টাকে হাস্যকর বলেন তিনি।

মঙ্গলবার সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন কাদের। এ সময় নানা বিষয়ের পাশাপাশি বিএনপির জাতীয় ঐক্য চেষ্টা নিয়েও কথা বলেন তিনি।

আগামী জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে ২০ দলের বাইরেও জোটের আকার বাড়াতে চাইছে বিএনপি। আর এই চেষ্টায় দুই দলের বৃত্তের বাইরে তৃতীয় শক্তি হওয়ার ঘোষণা দেয়া তিন দলের মোর্চা যুক্তফ্রন্ট এবং গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেনের সঙ্গে ঐক্য গড়ার এই চেষ্টাকে জাতীয় ঐক্য বলছে বিএনপি।

যুক্তফ্রন্ট এরই মধ্যে বিএনপির কাছে তিনশ আসনের মধ্যে ১৫০টি ছাড় দাবি করেছে আর বিএনপিকে জামায়াত ছাড়ের দাবি করেছে গণফোরাম।

এই ঐক্য গড়তে বিএনপি ছাড় দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে এবং তার শরিক দলগুলোও এতে সায় দিয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপি ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন করতে চায়। তাদের নিজেদেরই ঘরেই তো ঐক্য নাই। বিভিন্ন ইস্যুতে তারা নিজেরাই দ্বিধা বিভক্ত।’

‘তারা নিজেরাই তাদের অফিসে একে অন্যকে সরকারের এজেন্ট বলে। তাদের নিজেদের মধ্যে অবিশ্বাস, তাদের নিজেদের মধ্যে সন্দেহ প্রবল। যারা নিজেরা ঘরেই ঐক্যবদ্ধ নন, তারা দেশে ঐক্য করবে কীভাবে?’

বিএনপি এই ঐক্য কাকে নিয়ে করবে-সে প্রশ্ন তুলে কাদের বলেন,‘সাম্প্রদায়িক শক্তিকে নিয়ে? আওয়ামী লীগ ছাড়া আরও অনেক দল তাদের সাথে যাবে না।’

‘আর আওয়ামী লীগ দেশের সবচেয়ে বড় দল। এই দলকে বাদ দিয়ে জাতীয় ঐক্য হাস্যকর নয়? আওয়ামী লীগকে বাদ দিয়ে এ দেশে জাতীয় ঐক্য কীভাবে হয়? সবচেয়ে বড় দলকে বাদ দিয়ে? অন্যান্য অনেক দল আছে, যে সাম্প্রদায়িক শক্তি যদি বিএনপিতে থাকে, তাহলে তাদের সাথে ঐক্য করবে না। ’

আ.লীগ অতীতের চেয়ে বেশি ঐক্যবদ্ধ

জাতীয় নির্বাচনের তিন মাসের কিছু বেশি সময় বাকি থাকতে দলের ভেতর বিশৃঙ্খলার ঘটনায় তিন জন সংসদ সদস্যসহ ১৪ নেতাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ জারির বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন রাখেন একজন গণমাধ্যমকর্মী। এটি দলের ভেতর অন্তর্কোন্দলের প্রমাণ কি না-সেটি জানতে চান তিনি।

কাদের বলেন, ‘আওয়ামী লীগ অতীতের যে কোনো সময়ের চেয়ে অনেক সুশৃঙ্খল, অতীতের যে কোনো সময়ের চাইতে ঐক্যবব্ধ। এখন নির্বাচন আসছে, নির্বাচনের জন্য অনেকেই আশা আছে, আকাঙ্ক্ষা আছে। আওয়ামী লীগ বড় দল। এখানে প্রতিযোগিতা থাকবেই। এখানে আমরা অসুস্থ প্রতিযোগিতা করতে দেব না।

ট্রেনে করে উত্তরবঙ্গ সফরে ১৮টি সমাবেশের কোথায় অন্তর্কোন্দলের প্রকাশ দেখা গেছে কি না, সেই প্রশ্ন রাখেন কাদের।

‘খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে রাজনীতি করছে বিএনপি’

দুর্নীতির মামলায় দণ্ডিত বিএনপি চেয়ারপারসনকে বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়ার বিষয়ে দলের নেতাদের দাবি নিয়েও কাদেরের কাছে প্রশ্ন রাখা হয়।

জবাবে আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, ‘প্রশ্নটা সরকারি- বেসরকারি না। বিষয়টা হচ্ছে বিশেষায়িত হাসপাতাল। …সেদিক থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল তো বিশেষায়িত হাসপাতা। তার দরকার চিকিৎসা, কোন হাসপাতাল সেটা তো বিষয় না। উন্নত চিকিৎসার জন্য যে হাসপাতালে চিকিৎসা সম্ভব, সেখানে যেতে আপত্তিটা কোথায়?’

‘আসলে আপত্তিটা হচ্ছে তারা বিএনপি বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসার চাইতেও তার অসুস্থতা নিয় রাজনীতিটা করছেন। এখানে পলিটিকস হচ্ছে। এটাকে ইস্যু বানিয়ে তারা আন্দোলন করতে চাইছে।

তবে বিএনপির আন্দোলনের হুমকিকে পাত্তা দিচ্ছেন না কাদের। বলেন, ‘১০ বছরের ম্যাসেজ হচ্ছে তাদের আন্দোলন আষাঢ়ের তর্জন গর্জনে সার। ১০ বছরে হয়নি, দুই বছরে হবে না।’