ট্রাফিক আইন ভঙ্গকারী পুলিশকেও ছাড় নয়: ডিএমপি কমিশনার

আগের সংবাদ

নেপালের সঙ্গে হেরে বাংলাদেশের আশাভঙ্গ

পরের সংবাদ

জনবিচ্ছিন্ন বিএনপির সঙ্গে ঐক্যে লাভ নেই: অলি আহমদ

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৮ , ৮:০৪ অপরাহ্ণ | আপডেট: সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৮, ৮:০৪ অপরাহ্ণ

বিএনপিকে বাস্তববাদী ও কৌশলী হওয়ার পরমার্শ দিয়ে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বলেছেন, ‘বাস্তববাদী হোন, কৌশলী হোন। যাদের কোনো নির্বাচনে আসন নেই, যাদের কোনো সমর্থক নেই, এই ধরনের জনবিচ্ছিন্ন ব্যক্তিদের ঐক্যবদ্ধ করে কোনো লাভ হবে না। বরং বিএনপিকে সংগঠিত করুন।’

নির্বাচনকে সামনে রেখে জাতীয় ঐক্যের উদ্যোগের দিকে ইঙ্গিত করে আজ শনিবার দুপুরে এলডিপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক যোগদান অনুষ্ঠানে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের শরীক এই নেতা এসব কথা বলেন।

অলি আহমদ বলেন, ‘বিএনপি শক্তিশালী দল, আরও শক্তিশালী করুন। বিএনপির পক্ষে সঠিক নেতৃত্ব দিলে যেকোনো কিছু করা সম্ভব। এটা কঠিন বিষয় না।’

দেশবাসীর উদ্দেশে অলি আহমদ বলেন, ‘আজ কঠিন সময় পার করছি। সর্বত্র অনিশ্চয়তা ও গোমটভাব বিরাজ করছে। দেশে সবার মধ্যে একটি প্রশ্ন নির্বাচনকে ঘিরে দেশে কী হতে যাচ্ছে? দেশে কি শান্তি ফিরবে, নির্বিগ্নে নিরাপদে বসবাস করতে পারবে, সুশাসন ও ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠিত হবে, মানুষ কি নিজের ভোট নিজে দিতে পারবে? এই অবস্থায় সরকারি দল ও বিরোধী দলসমূহকে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে দেশের মানুষকে আশার আলো দেখাতে পারে।’

কেউ কাউকে ছাড় দিতে রাজি নয় উল্লেখ করে এলডিপি সভাপতি বলেন, ‘ভাগাভাগি নিয়ে ব্যস্ত। নির্বাচনকে সামনে রেখে আমরা রণসাজে সজ্জিত হচ্ছি। মনে হয়, দেশ পুনরায় রক্তপাতের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। এই অবস্থা কারো কাছে কাম্য হতে পারে না। সবার প্রশ্ন, এই জন্য কি আমরা মুক্তিযুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছি?’

দেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে কিছু প্রস্তাব তুলে ধরেন অলি আহমদ। তার প্রস্তাবের মধ্যে রয়েছে— জাতীয় ঐক্য, কার্যকরী সংসদ, সুশাসন এবং ন্যায় বিচার নিশ্চিত করণ, দুর্নীতিবাজ, সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান গ্রহণ, আইনে শাসন প্রতিষ্ঠা করণ, সবার জন্য সমান সুযোগ সৃষ্টি করা, জনগণের ভোটের অধিকার প্রয়োগ করার সুযোগ সৃষ্টি, প্রশাসনকে রাজনৈতিকমুক্ত রাখা, সব রাজনৈতিক দলগুলোকে অবাধে জনসভা করার পদক্ষেপ গ্রহণ করা, রাজনৈতিক মামলা প্রত্যাহার করা, গণতন্ত্র ও মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা।

অলি আহমদ বলেন, ‘আমাদের মধ্যে অধিকতর দায়িত্বশীলতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে। এতে করে শান্তি ফিরে আসবে রাজনৈতিক দালাল, তথাকথিত সুশীল সমাজের তৎপরতা বন্ধ হবে, ষড়যন্ত্রকারীরা হতাশায় ভুগবে। সুশৃঙ্খলভাবে দেশ এগিয়ে যাবে।’

অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য জাতীয় সংসদ নির্বাচনের উদ্যোগ প্রধানমন্ত্রীকে নিতে হবে উল্লেখ করে অলি আহমদ বলেন, ‘বিএনপি বড় রাজনৈতিক দল, অবহেলা করা ঠিক হবে না। জাতীয়তাবাদী শক্তির উত্থান ঠেকানো সম্ভব হবে না। সরকারকে আরও নমনীয় হয়ে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলা সম্ভব। আপনি বঙ্গবন্ধু কন্যা। আপনাকে সব কিছুর ঊর্ধ্বে উঠতে হবে। তা না হলে রক্তপাত এড়ানো যাবে না।’

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন— এলডিপির মহাসচিব ড. রেদওয়ান আহমেদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুল করিম আব্বাসী, আবদুল গনি, ইঞ্জিনিয়ার কামাল উদ্দিন মোস্তফা, সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব শাহাদৎ হোসেন সেলিম প্রমুখ।

এছাড়াও এলডিপিতে যোগ দেওয়া চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি শফিকুল ইসলাম স্বাধীন, জেলা জাপা নেতা ইদ্রিস আহমদ শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন।