আর্সেনিকসংক্রান্ত রোগে ভুগছেন শতাধিক মানুষ

আগের সংবাদ

রাজাকার পরিবারের হাতে মুক্তিযোদ্ধা নির্যাতন!

পরের সংবাদ

তেঁতুলিয়া-পঞ্চগড় মহাসড়কে

অবাধে চলছে রেজিস্ট্রেশন ছাড়া অবৈধ যানবাহন

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৮ , ৪:০৯ অপরাহ্ণ | আপডেট: সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৮, ৪:১০ অপরাহ্ণ

তেঁতুলিয়া-পঞ্চগড় মহাসড়কে অবাধে চলছে রেজিস্ট্রেশনবিহীন অবৈধ যানবাহন। এতে দিন দিন বাড়ছে সড়ক দুর্ঘটনা।
তেঁতুলিয়া-বাংলাবান্ধা ভায়া পঞ্চগড় জাতীয় মহাসড়কে রেজিস্ট্রেশনবিহীন ট্রাক্টর-ট্রলি, নসিমন, করিমন, ইজিবাইক, অটোবাইক ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা অবাধে চলছে। এসব অবৈধ যানবাহনের বেশির ভাগ চালক নিরক্ষর-অদক্ষ ও অপ্রাপ্ত বয়স্ক। এসব অবৈধ যানবাহনে চেপেই কোমলমতি শিক্ষার্থীরা ও জনসাধারণ ভালো-মন্দ না বুঝে দূর-দূরান্তে চলাচল করেন। প্রশিক্ষণবিহীন এসব যানবাহনের চালক ব্যস্ততম সড়কে নিয়ন্ত্রণহীনভাবে গাড়ি চালায়। পাশাপাশি দ্রুতগতিতে গাড়ি চালিয়ে ওভারটেক প্রতিযোগিতায় মেতে ওঠে। ফলে প্রতিনিয়ত যত্রতত্র ছোট-বড় সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে অনেককেই পুঙ্গত্বসহ মর্মান্তিক মৃত্যুর শিকার হতে হচ্ছে।
অতিসম্প্রতি তেঁতুলিয়া-পঞ্চগড় মহাসড়কের গবরা ব্রিজের মাথায় অটোবাইকের সঙ্গে মিনিবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে কাজী শাহাবুদ্দিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের বেশ কয়েক জন শিক্ষার্থী গুরুতর আহত হয়ে এখনো পঙ্গুত্ব জীবনযাপন করছে। চালক রংপুর মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। বেগম খালেদা জিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে রাস্তা পারাপারের সময় দুই শিক্ষার্থী মর্মান্তিকভাবে দুর্ঘটনায় নিহত হয়। এ ছাড়া এসব যানবাহন রাতে এলইডি লাইট ব্যবহার করে চলায় সাধারণ পথচারী ও মোটরসাইকেল আরোহীর জন্য ক্ষতির কারণ চোখের সামনে কিছুক্ষণের জন্য দৃষ্টি হারিয়ে যায়। এতে সামনে থেকে আসা ব্যক্তিরা কিছুই দেখতে পান না। এসব অবৈধ যানবাহন চলাচলের কারণে তেঁতুলিয়া-পঞ্চগড় মহাসড়ক যেন মৃত্যুক‚পে পরিণত হয়েছে।
সরেজমিন দেখা যায়, অবৈধ এসব যানবাহনগুলো ভজনপুর, মাগুমারী চৌরাস্তা, বুড়াবুড়ী, জগদল, শালবাহান রোড, কালান্দিগঞ্জ, তেঁতুলিয়া চৌরাস্তা, বাংলাবান্ধা, রণচন্ডি, তিরনইহাট বাজারে মহাসড়কের ওপর অটোবাইক-ইজিবাইক রীতিমতো স্ট্যান্ড করে থাকায় পথচারীদের মহাসড়কে চলাচলে বেশ দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এ বিষয়ে প্রশাসনসহ হাইওয়ে পুলিশ কার্যত কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না।
উপজেলা ও জেলার আইন-শৃঙ্খলাবিষয়ক মাসিক সভায় নিরাপদ সড়কের বিষয়ে আলোচনাকালে পথচারীদের চলাচলে ক্ষতিকারক এমন এলইডি লাইট ব্যবহার করা যাবে না রোধে একাধিকবার সিদ্ধান্ত হলেও তা বাস্তবায়িত হয়নি। মহাসড়ক ছাড়াও এসব গাড়ি গ্রামের বিভিন্ন সড়কগুলোতেও বীরদর্পে চলাচল করছে।
এ ব্যাপারে তেঁতুলিয়া হাইওয়ে থানার ওসি এনামুল হক প্রধান বলেন, মহাসড়কে অবৈধ যানবাহন চলাচল বন্ধ ও ক্ষতিকারক এলইডি লাইট খুলে ফেলার ব্যাপারে হাইওয়ে পুলিশের তৎপরতা অব্যাহত আছে এবং খুব শিগগিরই অভিযানে নামবে।