ধর্ষিতাকে ফেলা হয়েছিল নদীতে

আগের সংবাদ

আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে মাছ রপ্তানি বন্ধ

পরের সংবাদ

আইডিএলসি নাট্যোৎসবে মঞ্চস্থ ‘পঞ্চনারী আখ্যান’

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৮ , ১:৩৯ অপরাহ্ণ | আপডেট: সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৮, ১:৩৯ অপরাহ্ণ

আইডিএলসি ফাইন্যান্সিং লিমিটেড আয়োজিত পাঁচ দিনব্যাপী ‘আইডিএলসি নাট্যোৎসব ২০১৮’-এর তৃতীয় দিনে গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে মঞ্চস্থ হলো ‘পঞ্চনারী অ্যাখ্যান’।
হারুন রশীদ রচিত ‘পঞ্চনারী আখ্যান’ নাটকটি নির্দেশনা দিয়েছেন শহীদুজ্জামান সেলিম। নাটকে একক অভিনয় করেন দেশের জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পী রোজী সিদ্দিকী। গত কয়েক বছর ধরে শহীদুজ্জামান সেলিমের নির্দেশনায় মঞ্চে একক নাটক ‘পঞ্চনারী আখ্যান’-এ অভিনয় করে দর্শকদের মোহিত করছেন প্রতিভাময়ী অভিনেত্রী রোজী সেলিম।
‘পঞ্চনারী আখ্যান’ নাটকটি ঢাকা থিয়েটারের ৩৭তম প্রযোজনা। নাটকের মঞ্চ পরিকল্পনা করেছেন আফজাল হোসেন, সঙ্গীত পরিকল্পনা করেছেন মঞ্চকুসুম শিমূল ইউসুফ ও চন্দন চৌধুরী। পোশাক পরিকল্পনায় নাসরিন নাহার ও আলোক পরিকল্পনা করেছেন ওয়াসিম আহমেদ।
‘পঞ্চনারী আখ্যান’ নাটকের মূল উপজীব্য সমাজে নারী অধিকার। সৃষ্টির সূচনা থেকে নারীর দাবি একটাই কেবল নারী নয়, তার পরিচিতি হোক মানুষ হিসেবে। বিত্তহীন, মধ্যবিত্ত, উচ্চবিত্ত শ্রেণি থেকে শুরু করে পেশাগত সব অবস্থানেই নারী সহস্র বছর ধরে পুরুষতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থায় অন্যায়, বিভেদ আর বৈষম্যের শিকার হয়ে যাপন করছে মানবেতর জীবন। নারীর অধিকার নিয়ে কথা বলা হয় অনেক। কিন্তু পুরুষ শব্দের সমান অর্থবহ উচ্চারণে নারীর নামকরণ আদৌ হয় কী কোথাও? নিপীড়ন আর

নির্যাতনের যাঁতাকলে কোনো না কোনোভাবে পিষ্ট হচ্ছে প্রতিটি নারী। এ বন্দিদশা থেকে মুক্তি পেতে নিরন্তর সংগ্রামে লিপ্ত বিশ্বের নারী। বৈষম্যের হাহাকারকে অতিক্রম করে কবে তারা মানুষ হিসেবে নিজেকে অনুভব করতে পারবে- এমন আর্তনাদই ধ্বনিত হয়েছে ‘পঞ্চনারী আখ্যান’ শীর্ষক নাট্যে।
উল্লেখ্য, পাঁচ দিনব্যাপী ওই নাট্যোৎসবে দেশের আটটি দল নাটক পরিবেশন করবে। দর্শকনন্দিত এ দলগুলো হলো- ঢাকা পদাতিক, পালাকার, বটতলা, ঢাকা থিয়েটার, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত¡ বিভাগ, থিয়েটার, প্রাচ্যনাট ও নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়।
আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় মঞ্চস্থ হবে ফেরদৌসী মজুমদার অভিনীত ও থিয়েটার প্রযোজিত ‘মুক্তি’।