চন্দ্রনাথধামের সম্পত্তি রক্ষায় সজাগ থাকুন : শ্যামল দত্ত

আগের সংবাদ

নির্ধারিত স্টপেজ ছাড়া থামবে না বাস

পরের সংবাদ

এক টিকেটে দুই নাটক উপহার দিল সংস্কার

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ৪, ২০১৮ , ১২:৪২ অপরাহ্ণ | আপডেট: সেপ্টেম্বর ৪, ২০১৮, ১২:৪২ অপরাহ্ণ

তারুণ্যদীপ্ত নাট্য সংগঠন সংস্কার নাট্যদল এক টিকেটে দুই নাটক উপহার দিল নাম ‘ভুল স্বর্গ’ ও ‘মহাপতঙ্গ’। গতকাল সন্ধ্যায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে নাটক দুটির মঞ্চায়ন হলো। এর মধ্যে ‘ভুল স্বর্গ’ নাটকটি রচনা করেছেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। নাটকটির নির্দেশনা দিয়েছেন অধ্যাপক ড. ইউসুফ হাসান অর্ক। অন্যদিকে ‘মহাপতঙ্গ’ নাটকটির মূল গল্প আবু ইসহাক, নাট্যরূপ ড. রুবাইয়াৎ আহম্মেদ ও নির্দেশনা দিয়েছেন হাবিব মাসুদ। নাটক দুটির ব্যাপ্তি বিরতিসহ ১ ঘণ্টা ১০ মিনিট। ‘ভুল স্বর্গ’ নাটকের কাহিনীতে দেখা যায়, নেহাত একটি বেকার লোক। যার নানা রকমের শখ। পটে চিত্র আঁকা, মাটির ঢেলা দিয়ে নানা বস্তু তৈরি করা ইত্যাদি। সারাজীবন অকাজে পার করলেও মৃত্যুর পর জানতে পারে তার স্বর্গে যাওয়া মঞ্জুর। কিন্তু নিয়তি তার পিছু ছাড়ে না। স্বর্গের দূত তাকে ভুল করে অকেজো লোকের স্বর্গে না পাঠিয়ে কেজো লোকের স্বর্গে দিয়ে আসে। ভুল স্বর্গে গিয়ে তৈরি হয় নানা বিপত্তি। যেখানে সকলেই নানা কাজে ব্যস্ত। তাদের কোনো অবসর নেই। আর বেকার লোকটিই কোনো কাজ পায় না। স্বর্গের ব্যস্ত
মেয়ের ঘটে চিত্রপট একে দিয়ে তাকে মুগ্ধ ও চিন্তিত করে ফেলে। তৈরি হয় কেজো লোকের স্বর্গবিরোধী আচরণ। সভা বসে। স্বর্গের প্রধান জ্ঞানী গুণীজন তার এই কর্মে চিন্তিত হয়ে পড়ে। তারপর ডাক পড়ে দূতের। জানা যায়, তাকে ভুল করে ভুল স্বর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। সিদ্ধান্ত হয় আবার বেকার লোকটিকে পৃথিবীতে পাঠানো হবে। এভাবেই এগিয়ে যায় নাটকের কাহিনি।
অন্যদিকে ‘মহাপতঙ্গ’ নাটকের কাহিনিতে দেখা যায়, ছোট একটি শহরের ছোট একটি বাড়ির দেয়ালের ফোকড়ে বাস করে দুটি চড়ুই দম্পতি। বাসায় তাদের দুটি ছোট ছানা রয়েছে। তারা বহু আদরে বেঁচে থাকার কায়দা শেখায় বাচ্চাদের। একবার গল্প বলতে বলছে এক মহাপতঙ্গের কথা বলে। নানা ঘটনার মধ্য দিয়ে এগিয়ে যায় গল্প। এক সময় হারিয়ে যায় চড়ুইয়ের সুখের সংসার। পুরুষ চড়ুই মানুষের জয়গান করেছিল এক সময়। আর সেই মানুষের কারণেই তৈরি হয়েছে হত্যা, ধ্বংসযজ্ঞের। প্রসঙ্গত এই দুটি নাটকই সংস্কার নাট্যদলের কর্মশালা প্রযোজনা।