চলনবিলে নৌকাডুবির ঘটনায় নিখোঁজ ৪

আগের সংবাদ

চলনবিলে নৌকাডুবির ঘটনায় একজনের মরদেহ উদ্ধার

পরের সংবাদ

বরগুনায় গোলাবারুদসহ ৪ দস্যু আটক

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ১, ২০১৮ , ১০:৫৫ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: সেপ্টেম্বর ১, ২০১৮, ১০:৫৫ পূর্বাহ্ণ

বরগুনার পাথরঘাটা সংলগ্ন সুন্দরবনের শাখা খাল এলাকা থেকে গোলাবারুদসহ ৪ দস্যুকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-৮)। শনিবার (১ সেপ্টেম্বর) ভোর রাতে তাদের পাথরঘাটা থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। এর আগে শুক্রবার (৩১ আগস্ট) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে ওই এলাকায় অভিযান শুরু করে ব্যাব।

আটক দস্যুরা হলেন- সুন্দরবনের কুখ্যাত দস্যু ছত্তার বাহিনীর সদস্য বাগেরহাটের মোংলা উপজেলার নারিকেলতলা এলাকার আব্দুল গফফার শেখের ছেলে রুমি শেখ (২৮), জাকির বাহিনীর সদস্য রামপালের কাঁঠালী এলাকার ইউনুছ আকন্দের ছেলে এমাদুল আকন্দ (২৭), বড় কাঁঠালী এলাকার বাবুল খানের ছেলে ইমরান খান (২৮) ও মোংলা উপজেলার সোনাইতলা এলাকার আবু হাসান সরদারের ছেলে হাসমত আলী (৩৭)।

এসময় তাদের কাছ থেকে দেশীয় বন্দুক দু’টি, ১০ রাউন্ড গুলি, এক নলা বন্দুক একটি, ১২ বোর বন্দুকের চার রাউন্ড কার্তুজসহ তিনটি দেশীয় তৈরি ছেনা উদ্ধার করা হয়।

পাথরঘাটা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোল্লা মো. খবীর আহম্মেদ এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন র‌্যাব ৮ শুক্রবার বিকেলে পাথরঘাটা সংলগ্ন সুন্দরবনের শাখা খাল এলাকায় অভিযান চালায়। এ সময় দস্যুরা হামলা চালালে তাৎক্ষণিক ছত্তার বাহিনীর সদস্য রুমি শেখকে আটক করে র‌্যাব। পরে তাকে নিয়ে সুন্দরবনে অভিযান চালালে সুন্দরবনের কুখ্যাত দস্যু জাকির বাহিনীর অন্য ৩ সদস্যকে আটক করে তারা।

তিনি আরও জানান, র‌্যাব-৮ এর ডিএডি আবু হোসেন শাহরিয়ার বাদী হয়ে পাথরঘাটা থানায় অস্ত্র ও ডাকাতি প্রস্তুতির পৃথক চারটি মামলা দায়ের করেছে।

বরিশাল র‌্যাব-৮ এর ডিএডি আবু হোসেন শাহরিয়ার বাংলানিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, এ সময় অন্তত আরো পাঁচ থেকে সাত দস্যু পালিয়ে যায়।