বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে মুক্তিযোদ্ধা যুব কমান্ডের আলোচনা সভা

আগের সংবাদ

কাঠমান্ডুতে প্রধানমন্ত্রী,বিমানবন্দরে লালগালিচা সংবর্ধনা

পরের সংবাদ

নিউইয়র্ক সিটি মেয়র অফিসের অভিবাসী বিষয়ক কমিশনার এর সাথে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল এর সাক্ষাত

প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ৩০, ২০১৮ , ৬:৩৪ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: আগস্ট ৩০, ২০১৮, ৬:৩৪ পূর্বাহ্ণ

শামীম আহমেদ

শামীম আহমেদ

যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি নিউইয়র্ক থেকে

নিউইয়র্কে বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল এর কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুননেসা ২৮ আগস্ট নিউইয়র্ক সিটির অভিবাসী বিষয়ক কমিনিউইয়র্ক সিটি মেয়র অফিসের অভিবাসী বিষয়ক কমিশনার এর সাথে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল এর সাক্ষাত

নিউইয়র্কে বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল এর কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুননেসা ২৮ আগস্ট নিউইয়র্ক সিটির অভিবাসী বিষয়ক কমিশনার মিজ বিটা মোস্তফী’র এর সাথে তাঁর অফিসে সাক্ষাত করেন। কমিশনার মোস্তফী কনসাল জেনারেল ফয়জুননেসাকে তাঁর অফিসে স্বাগত ও অভিনন্দন জানান। মিস ফয়জুননেসাও অভিবাসী বিষয়ক কমিশনার হিসেবে যোগদান করায় মিজ্ মোস্তফী’কে অভিনন্দন জানান।
সাক্ষাৎকালে, কনসাল জেনারেল বাংলাদেশী-আমেরিকান জনগোষ্ঠীকে সার্বিক সেবা ও সহযোগিতা প্রদানের জন্য কমিশনার ও নিউইয়র্ক সিটি মেয়র অফিসকে ধন্যবাদ জানান। কনসাল জেনারেল উল্লেখ করেন, বাংলাদেশী-আমেরিকান জনগোষ্ঠী ঐতিহ্যগতভাবে কঠোর পরিশ্রমী, সমৃদ্ধ সংস্কৃতি মনস্ক এবং আইন-শৃংখলার প্রতি শ্রদ্ধাশীল এবং তারা এ বৃহৎ শহরের কল্যাণে নিবেদিত। এ বিষয়ে, তিনি নিউইয়র্কে ক্রমবর্ধমান বাংলাদেশী-আমেরিকান জনগোষ্ঠীর সামাজিক কার্যক্রম এবং সংস্কৃতি বিস্তারে সহযোগিতার জন্য নিউইয়র্ক সিটি কমিশনারকে অনুরোধ করেন।
বাংলাদেশী-আমেরিকান নাগরিক কর্তৃক নিউইয়র্ক সিটি মেয়র অফিস কর্তৃক প্রদত্ত বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা গ্রহণের বিষয়ে কনসাল জেনারেল এবং কমিশনার আলোচনা করেন। মেয়র অফিস কর্তৃক প্রদত্ত বিনামূল্যে ইংরেজী শিক্ষা কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করে নাগরিকত্ব পরীক্ষায় সুফল পাওয়ার বিষয়টি কি করে আমেরিকান-বাংলাদেশীদের সম্যকভাবে অবগত করা যায়, সে বিষয়েও তাঁরা আলোচনা করেন। বাংলাদেশী-আমেরিকান নাগরিকদের কল্যানের জন্য মেয়র অফিসের সাথে একযোগে কাজ করার বিষয়ে কনসাল জেনারেল আগ্রহ প্রকাশ করেন এবং এ লক্ষ্যে সহায়তা প্রদানের আশ্বাস দেন।
কনস্যুলেট জেনারেল এর কাউন্সেলর ও চ্যান্সারী প্রধান চৌধুরী সুলতানা পারভীন এবং প্রথম সচিব জনাব মোঃ শামীম হোসেন এ সময় উপস্থিত ছিলেন। শনার মিজ বিটা মোস্তফী’র এর সাথে তাঁর অফিসে সাক্ষাত করেন। কমিশনার মোস্তফী কনসাল জেনারেল ফয়জুননেসাকে তাঁর অফিসে স্বাগত ও অভিনন্দন জানান। মিস ফয়জুননেসাও অভিবাসী বিষয়ক কমিশনার হিসেবে যোগদান করায় মিজ্ মোস্তফী’কে অভিনন্দন জানান।
সাক্ষাৎকালে, কনসাল জেনারেল বাংলাদেশী-আমেরিকান জনগোষ্ঠীকে সার্বিক সেবা ও সহযোগিতা প্রদানের জন্য কমিশনার ও নিউইয়র্ক সিটি মেয়র অফিসকে ধন্যবাদ জানান। কনসাল জেনারেল উল্লেখ করেন, বাংলাদেশী-আমেরিকান জনগোষ্ঠী ঐতিহ্যগতভাবে কঠোর পরিশ্রমী, সমৃদ্ধ সংস্কৃতি মনস্ক এবং আইন-শৃংখলার প্রতি শ্রদ্ধাশীল এবং তারা এ বৃহৎ শহরের কল্যাণে নিবেদিত। এ বিষয়ে, তিনি নিউইয়র্কে ক্রমবর্ধমান বাংলাদেশী-আমেরিকান জনগোষ্ঠীর সামাজিক কার্যক্রম এবং সংস্কৃতি বিস্তারে সহযোগিতার জন্য নিউইয়র্ক সিটি কমিশনারকে অনুরোধ করেন।
বাংলাদেশী-আমেরিকান নাগরিক কর্তৃক নিউইয়র্ক সিটি মেয়র অফিস কর্তৃক প্রদত্ত বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা গ্রহণের বিষয়ে কনসাল জেনারেল এবং কমিশনার আলোচনা করেন। মেয়র অফিস কর্তৃক প্রদত্ত বিনামূল্যে ইংরেজী শিক্ষা কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করে নাগরিকত্ব পরীক্ষায় সুফল পাওয়ার বিষয়টি কি করে আমেরিকান-বাংলাদেশীদের সম্যকভাবে অবগত করা যায়, সে বিষয়েও তাঁরা আলোচনা করেন। বাংলাদেশী-আমেরিকান নাগরিকদের কল্যানের জন্য মেয়র অফিসের সাথে একযোগে কাজ করার বিষয়ে কনসাল জেনারেল আগ্রহ প্রকাশ করেন এবং এ লক্ষ্যে সহায়তা প্রদানের আশ্বাস দেন।
কনস্যুলেট জেনারেল এর কাউন্সেলর ও চ্যান্সারী প্রধান চৌধুরী সুলতানা পারভীন এবং প্রথম সচিব জনাব মোঃ শামীম হোসেন এ সময় উপস্থিত ছিলেন।