রক্তচাপ মাপবে অ্যাপল ওয়াচ ৪!

আগের সংবাদ

গ্লাক্সোস্মিথক্লাইনের ইজিএম ১৪ অক্টোবর

পরের সংবাদ

এশিয়া কাপের আগেই স্পন্সর পাচ্ছে বিসিবি!

প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ২৯, ২০১৮ , ৩:১৮ অপরাহ্ণ | আপডেট: আগস্ট ২৯, ২০১৮, ৩:১৮ অপরাহ্ণ

আসছে ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে শুরু হবে এশিয়া কাপের আসর। এশিয়া কাপ শুরুর আগেই টাইগারদের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেছে বেসরকারি মোবাইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান রবি। গত বছর জুলাইয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে দ্বিতীয় দফায় দুই বছরের স্পন্সরশিপ চুক্তি করে রবি। চুক্তি ছিল ২০১৯ সালের জুন পর্যন্ত। কিন্তু দশ মাস আগেই রবিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে চুক্তি বাতিলের কথা জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে রবির পক্ষ থেকে সুনির্দিষ্ট কোনো কারণ উল্লেখ করা হয়নি। তবে চুক্তিটি প্রাসঙ্গিকতা হারিয়েছে বলে জানায় রবি। এশিয়া কাপের শিরোপা জয়ের প্রত্যাশায় সোমবার থেকে অনুশীলন শুরু করেছে মাশরাফির দল। প্রথম দিনেই দলের কন্ডিশনিং ক্যাম্পে বদলে গেছে খেলোয়াড়দের জার্সি। জার্সিতে ‘রবি’ লেখাটা ছিল না। ৯ মাস আগেই বিসিবির সঙ্গে চুক্তি বাতিল করেছে রবি। অন্য প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে দলের কয়েকজন সিনিয়র খেলোয়াড়ের ব্যক্তিগত চুক্তির কারণে রবি এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে অন্য সূত্রে জানা গেছে।
বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী জানালেন, গ্রামীণফোনের সঙ্গে চুক্তি বাতিল করেছেন তামিম। সাকিবের যে চুক্তি ছিল তিনি তা বাতিল করেছেন। মাশরাফির গ্রামীণফোনের সঙ্গে চুক্তিও বাতিলের প্রক্রিয়া চলছিল। তারা আমাদের কাছে যা বলেছে তা গ্রহণযাগ্য নয়। আমরা যে পদক্ষেপগুলো নিয়েছিলাম তারা সে সম্পর্কে অবগত আছে। তিনি আরো বলেন, তবে আমাদের মনে হয়েছে কৌশলগত কারণে তারা চুক্তি বাতিলের সিদ্ধান্ত নিতে পারে। তবে রবি বলছে, বিসিবির সঙ্গে করা চুক্তিটি প্রাসঙ্গিকতা হারিয়েছে জানিয়ে তাই তারা চুক্তি বাতিল করেছে।
বিসিবির সঙ্গে করা চুক্তিতে শুধু বাংলাদেশ ক্রিকেটের পুরুষ দলই ছিল না, বরং নারী, ‘এ’ দল ও অনূর্ধ্ব-১৯ দলের স্পন্সরশিপও নিয়েছিল রবি। দ্বিতীয় দফায় চুক্তি নবায়নের সময়েই নানান নতুন শর্ত দিয়েছিল মোবাইল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানটি। যা পূরণ করতে রাজি হয়নি বিসিবি। তাই বিসিবির সঙ্গে করা চুক্তিটি প্রাসঙ্গিকতা হারিয়েছে জানিয়ে চুক্তি বাতিল করেছে রবি। বিসিবি কি এখন রবির কাছে কোনো ক্ষতিপূরণ চাইবে? কিংবা পাওনা দাবি করবে? সিইও জানান, এটা এখন টার্মস এন্ড কন্ডিশনে যা লেখা আছে তার মধ্য দিয়ে যাবে। আমাদের লিগ্যাল টিমকে দিয়েছি। তারা দেখবে। এর মধ্যে আমদের যদি কোনো ক্লেইম থাকে তবে তা আমরা অবশ্যই রেইজ (উত্থাপন) করব। বিসিবি এশিয়া কাপের আগেই স্পন্সর জোগাড় করবে। নতুন আয়োজক পাওয়ার জন্য সহসাই বিজ্ঞাপন দেবে বিসিবি। সে ক্ষেত্রে এশিয়া কাপও হতে পারে, লং টার্মও হতে পারে বলে জানিয়েছেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী।