জার্মানিতে অভিবাসনবিরোধী বিক্ষোভ

আগের সংবাদ

নতুন শ্রমবাজার তৈরিতে দৃষ্টি দিক সরকার

পরের সংবাদ

মানিকগঞ্জে যমুনা নদীতে ট্রলারডুবি, শিশুসহ নিখোঁজ ৩

প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ২৮, ২০১৮ , ৭:১৬ অপরাহ্ণ | আপডেট: আগস্ট ২৮, ২০১৮, ৭:১৬ অপরাহ্ণ

মানিকগঞ্জের শিবালয়ে মালবাহী একটি কার্গো জাহাজের ধাক্কায় একটি ইঞ্জিনচালিত যাত্রীবাহী ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় এক শিশুসহ কমপক্ষে তিনজন নিখোঁজ রয়েছে। আহত হয়েছেন অন্তত আরো ১৬ জন যাত্রী। আজ মঙ্গলবার সকালে উপজেলার আলোকদিয়া চরের যমুনা নদীতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর মানিকগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিটের চারজন ডুবুরি দল ও পুলিশ উদ্ধার তৎপরতা চালায়। আজ বিকেলে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত নিখোঁজ ব্যক্তিদের সন্ধান পাওয়া যায়নি। ট্রলারটিরও খোঁজ মেলেনি।

নিখোঁজ ব্যক্তিরা হলেন-পাবনার সুজানগর উপজেলার নাজিরগঞ্জ গ্রামের মুকুল মিয়ার মেয়ে মেঘলা আক্তার (৬), একই উপজেলার রামনগর গ্রামের খোকন শেখের ছেলে মাসুম হোসেন (২৫) এবং পাবনার আতাইকোলা উপজেলার কদমতলা গ্রামের নূর বক্স (৪৫)।

এদিকে এ ঘটনায় আহতদের মধ্যে মঞ্জিলা আক্তারের (২০) ডান পা ভেঙ্গে গেছে। তাঁকে প্রথমে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলা সদরের শাহজাদপুর গ্রামের মঞ্জুর বেপারীর মেয়ে।

পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস এবং স্থানীয় লোকজন জানান, আজ মঙ্গলবার সকালে পাবনার বেড়া উপজেলার কাজিরহাট এলাকা থেকে শতাধিক যাত্রী নিয়ে একটি ট্রলার শিবালয়ের আরিচা ঘাটের উদ্দেশে রওনা দেয়। ঈদ শেষে এসব যাত্রী ঢাকা ও এর আশপাশের এলাকায় কর্মস্থলে ফিরছিলেন। সকাল ১০টার দিকে শিবালয়ের আলোকদিয়া চর এলাকায় যমুনা নদীতে সিমেন্ট বোঝাই একটি কার্গো জাহাজের সঙ্গে ট্রলারটির মুখোমুখি সংঘর্ষে ট্রলারটির তলা ফেটে নদীতে ডুবে যায়। এতে যাত্রীদের কেউ কেউ সাঁতরে তীরে ওঠে। এ সময় স্থানীয় ব্যক্তিরাও যাত্রীদের উদ্ধার কাজ চালায়। খবর পেয়ে পুলিশ এবং ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা হতাহতদের উদ্ধারে অভিযান চালায়।

এ ব্যাপারে মানিকগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক মিজানুর রহমান বলেন, ‘নিখোঁজ ব্যক্তিদের উদ্ধারে আমরা উদ্ধার তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছি। ঢাকা থেকে ফায়ার সার্ভিসের বিশেষজ্ঞ ডুবুরি দল উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে। তবে নদীতে প্রবল স্রোত থাকার কারণে উদ্ধার কাজ ব্যাহত হচ্ছে অনেকটাই।

মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম জানান, নারায়ণগঞ্জ থেকে সিমেন্ট বোঝাই করে এমভি প্রিমিয়াম-১১ নামের একটি কার্গো পাবনার বেড়ায় যাচ্ছিল। কার্গোটির ধাক্কায় যাত্রীবাহী ট্রলারটি নদীতে ডুবে যাওয়ায় এই হতাহতের ঘটনা ঘটে। কার্গোটি আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মানিকগঞ্জের জেলা প্রশাসক এস এম ফেরদৌস জানান, আমরা ঘটনার কারণ উদঘাটন করার চেষ্টা করছি। প্রয়োজনে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। আর এ ঘটনায় হতাহতেদের বিষয়ে খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।