উৎসবে নতুন গান

আগের সংবাদ

এশিয়ান গেমসের পর্দা উঠছে আজ

পরের সংবাদ

টিভি পর্দায় নাটকের ধুম

প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ১৮, ২০১৮ , ১:০২ অপরাহ্ণ | আপডেট: আগস্ট ১৮, ২০১৮, ১:০২ অপরাহ্ণ

প্রতি বছর ঈদ মানেই টেলিভিশনের পর্দায় সপ্তাহজুড়ে বর্ণিল আয়োজন। আর সেই আয়োজনের অন্যতম আকর্ষণ থাকে নাটক-টেলিছবি। আসছে কুরবানির ঈদেও দেশের প্রায় সবগুলো টেলিভিশন চ্যানেলে প্রচার হবে নাটক-টেলিছবি। এ ছাড়া অনলাইন মাধ্যমের বিভিন্ন ভিডিও স্ট্রিমিং প্লাটফর্মে প্রচার হবে নাটক-টেলিছবি। সব মিলিয়ে প্রায় তিন শতাধিক নাটক-টেলিছবি প্রচার হবে বলে জানা গেছে। শেষ মুহূর্তের শুটিং নিয়ে এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন অভিনয় শিল্পী, নির্মাতারা। অন্যদিকে শিডিউল চূড়ান্ত করতে ব্যস্ত সময় পার করছেন টেলিভিশন চ্যানেলের অনুষ্ঠান বিভাগ। বিগত কয়েক বছর ধরেই ঈদের নাটকে সবচেয়ে বেশি চাহিদা থাকে মোশাররফ করিম, আফরান নিশো, সজল, অপূর্ব, তৌসিফ, মম, মেহজাবিন, প্রভা প্রমুখের। এবারের ঈদেও দেখা যাবে তাদের। গত রোজার ঈদে আফরান নিশো অভিনীত ‘বুকের বাঁ পাশে’ জনপ্রিয়তা পাওয়ায় এবারের ঈদে তার চাহিদা অনেক বেশি। এ ছাড়া দীর্ঘদিন পর টিভি পর্দায় একসঙ্গে দেখা যাবে আফজাল-সুবর্ণা জুটিকে। বদরুল আনাম সৌদের পরিচালনায় ‘নূরুল আলমের মধুচন্দ্রিমা’ নাটকে দেখা যাবে আফজাল-সুবর্ণাকে। নাটকটি ঈদের পরদিন রাত সাড়ে ৮টায় এটিএন বাংলা প্রচার হবে। জানা গেছে, এবারের ঈদে ২০টি একক নাটক এবং ৫টি ধারাবাহিক নাটক প্রচার করবে এটিএন বাংলা।
অন্যদিকে দেশের জনপ্রিয় বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল আরটিভি সাত দিনের ঈদ অনুষ্ঠান সাজিয়েছে। এই আয়োজনে ৭ পর্বের ৩টি ধারাবাহিক, ৭টি এক খন্ডের নাটক, ৭টি টেলিফিল্ম এবং ৭ দিনব্যাপী মোশাররফ করিম উৎসবে ৭টি একক নাটক প্রচার হবে। এ ছাড়া লাক্স ও গ্রামীণফোন নিবেদিত আরো ১৪টি নাটক প্রচারিত হবে চ্যানেলটিতে। এদিকে ঈদের তৃতীয় দিন রাত ৯টায় মাছরাঙা টিভিতে প্রচার হবে হাসান রেজাউলের পরিচালনায় নাটক ‘নীল রংধনু’। এবারের ঈদে মাছরাঙা টিভি দুই ডজনেরও বেশি নাটক, ধারাবাহিক ও টেলিছবি প্রচার করবে। প্রতি বছরের মতোই এবারের ঈদেও থাকবে রেজানুর রহমান নির্মিত নাটক। নাম ‘বড় বল ছোট বল’। ঈদকে উপলক্ষ করে আট বছর পর টিভি নাটকে ফিরছেন মোস্তফা সরয়ার ফারুকী। সঙ্গে তার ‘ভাই-ব্রাদার’ গ্রæপও রয়েছে। গত বছর ভাই ব্রাদারদের নিয়ে ছবিয়াল রি-ইউনিয়ন শিরোনামে ছোট পর্দায় দেখা গেলেও ফারুকী নিজে তখন কোনো নাটকের নির্দেশনা দেননি। কিন্তু এবার ভাই ব্রাদারদের পাশাপাশি তিনি নিজেও টেলিছবি ও নাটক পরিচালনা করছেন। ফারুকী বলেন, ‘আমাদের এবারের নাটকের বিষয়বস্তুগুলো জীবনবোধ ও সমসাময়িক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে। দর্শকহৃদয় ছুঁয়ে যাওয়ার মতোই প্রতিটি গল্প। আশা করছি, পুনরায় শুরু করা আমাদের যাত্রাটি সফল হবে।’ মোস্তফা সরয়ার ফারুকী এবং ভাই ব্রাদার এক্সপ্রেস প্রকল্পের আওতায় ফারুকী নির্মাণ করছেন টেলিছবি ‘আয়েশা’। এ ছাড়া ছয়টি নাটক নির্মাণ করছেন ‘ভাই ব্রাদার এক্সপ্রেসে’র নয়জন নির্মাতা। এর মধ্যে ‘পাতা ঝরার দিন’ রেদওয়ান রনি; ‘সোনালি ডানার চিল’ আশফাক নিপুণ; ‘দ্য আর্টিস্ট’ মাহমুদুল ইসলাম; ‘পাতলা খান লেনে বাঘ আসিয়াছিল’ যৌথভাবে আবদুল্লাহ আল মুক্তাদির ও ফাহাদ খান; ‘আজকে না হয় ভালোবাস’ যৌথভাবে নাজমুল নবীন ও মাহমুদুল হাসান আদনান এবং ‘লিটনের গরিবি ফ্ল্যাট’ যৌথভাবে মোমিন বিশ্বাস ও লোটাস মজুমদার নির্মাণ করছেন। এই আয়োজনটি দেখা যাবে চ্যানেল আইয়ের পর্দায়।
ঈদ আয়োজনে বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলের জন্য ৩০টি নাটক নির্মাণ করছে গ্লোব মাল্টিমিডিয়া। ভিন্ন ভিন্ন পটভ‚মি নিয়ে নির্মিত নাটকগুলো প্রচার হবে বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে। এর মধ্যে বাংলাভিশনে প্রচার হবে ৭টি, এটিএন বাংলায় ১০টি, চ্যানেল নাইনে ৬টি ও দেশ টিভিতে ৭টি নাটক প্রচার হবে।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা