গোপালগঞ্জে এমএলএম ব্যবসার নামে প্রতারণা, আটক ৭

আগের সংবাদ

সংলাপের নামে ছলনা করছে বিএনপি: কাদের

পরের সংবাদ

এশিয়া কাপের পর সাকিবের অস্ত্রোপচার চাইছেন নাজমুল

প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ৯, ২০১৮ , ১০:২৯ অপরাহ্ণ | আপডেট: আগস্ট ৯, ২০১৮, ১০:২৯ অপরাহ্ণ

আগামী মাসেই সংযুক্ত আরব আমিরাতে এশিয়া কাপে খেলবে বাংলাদেশ। কিন্তু সাকিব আল হাসানের খেলা হবে কিনা তা এখনও নিশ্চিত নয়।

শতভাগ ফিট সাকিবকে পেতে প্রয়োজন আঙুলে অস্ত্রোপচার। বাঁ হাতের কনিষ্ঠার চোট ছয় মাস ধরে যন্ত্রনা দিচ্ছে সাকিবকে। চোট কাটিয়ে মাঠে ফিরলেও সাকিব শতভাগ সামর্থ্য দিতে পারছেন না। বোলিংয়ে সমস্যা না হলেও ব্যাটিংয়ে সমস্যা হচ্ছে তার। ব্যথা দূর করতে অস্ত্রোপচারের বিকল্প নেই।

সাকিব নিজেও মনস্থির করেছেন অস্ত্রোপচার করাবেন। যতদ্রুত সম্ভব অস্ত্রোপচার করাতে চান সাকিব। কিন্তু অস্ত্রোপচার করালে দুই মাস মাঠের বাইরে থাকতে হবে তাকে। সেক্ষেত্রে এশিয়া কাপ মিস করবেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।

বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান পাপন চাইছেন এশিয়া কাপ খেলুক সাকিব। এশিয়া কাপের পর জিম্বাবুয়ে সিরিজ বাংলাদেশের। সেটা মিস করলেও কোনো আপত্তি নেই তার। এ নিয়ে সাকিবের সঙ্গে কথাও হয়েছে তার। কিন্তু চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত এখনও নেওয়া হয়নি।

বিকেলে রাজধানীর এক হোটেলে বৈঠক শেষে নাজমুল হাসান বলেছেন,‘সাকিব আমাকে ফোন করেছিল। বলেছিল যে হাতে অপারেশন করাতে হবে। হেড কোচও ওখান থেকে ফোন করেছিল। কারণ যে স্ট্রেংথ ওর দরকার, সেটা পাচ্ছে না ব্যাটিংয়ে। ইনজেকশন নিয়ে খেলছে। কিন্তু অস্ত্রোপচার হলে অন্তত ছয় সপ্তাহের বিরতি দরকার। এত লম্বা বিরতি পাওয়াটা কঠিন।’

‘এশিয়া কাপের আগেও হতে পারে, পরেও হতে পারে। জিম্বাবুয়ে সিরিজের সময় হতে পারে। আজকে কোচের সঙ্গে যে কথা হয়েছে, ও বলেছে এশিয়া কাপের কথাই। আমি বলেছি, এশিয়া কাপের চেয়ে ভালো হয় আমরা জিম্বাবুয়ে সিরিজের সময় অস্ত্রোপচারটা করি। তখন নতুন কিছু ক্রিকেটারও দেখতে পরব আমরা। ওটাতে আমার মনে হয় ভালো হবে। এশিয়া কাপ এমনিতেই এবার কঠিন হবে। তার ওপর সাকিবের মতো একজন ক্রিকেটার না খেললে দলের আত্মবিশ্বাস আরও দূর্বল হয়ে যেতে পারে। ওকে ছাড়া আমরা এশিয়া কাপ চিন্তাই করতে পারছি না। তারপরও আরও কথা হবে। আমার মনে হয়, অন্য সময় করাটাই ভালো হবে।’- যোগ করেন নাজমুল হাসান।

সাকিব খেলবেন কিনা তা সময়ই বলে দিবে। তবে এবারের এশিয়া কাপ অনেক বেশি চ্যালেঞ্জিং হবে বলে মনে করছেন বোর্ড প্রধান। তার ভাষ্য,‘ক্রিকেটে বলা কঠিন…পাকিস্তান এখন সুপার ফর্মে আছে। ভারত তো আগে থেকেই শক্তিশালী। আমরা ও শ্রীলঙ্কা এখন একই লেভেলের। আগে শ্রীলঙ্কা অনেক ওপরে ছিল, এখন একই। আমরাও জিততে পারি, ওরা জিততে পারি। সেদিক থেকে এবারের এশিয়া কাপ আমার কাছে মনে হচ্ছে কঠিনই হবে। পাশাপাশি নতুন পরিবেশ, কঠিন হবে। আমরা সেজন্য দলকে আগে পাঠানোর চেষ্টা করছি।’

প্রসঙ্গত, তিন বছর পর এশিয়া কাপ সরল বাংলাদেশ থেকে। ২০১২ সাল থেকে টানা তিন বছর এশিয়া কাপের আয়োজক ছিল বাংলাদেশ।