সফলতার নতুন গল্পে তৌকীর

আগের সংবাদ

সাজেদা চৌধুরীর নিরঙ্কুশ বিজয় চান তৃণমূল নেতাকর্মীরা

পরের সংবাদ

তীব্র গরমেও প্রচারণায় ব্যস্ত লিটন-বুলবুুল

প্রকাশিত হয়েছে: জুলাই ২১, ২০১৮ , ১:২১ অপরাহ্ণ | আপডেট: জুলাই ২১, ২০১৮, ১:২১ অপরাহ্ণ

তীব্র গরমে রাজশাহীতে জনজীবন যখন বিপর্যস্ত তখন গতকাল শুক্রবার নৌকার মেয়রপ্রার্থী এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন ও ধানের শীষের মেয়রপ্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ব্যস্ত ছিলেন গণসংযোগে। এদিকে গতকাল বেলা ১১টায় চার মেয়রপ্রার্থীকে নিয়ে এক গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করা হয়। রাজশাহী চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি ভবনে অনুষ্ঠিত গোলটেবিল বৈঠকে মেয়রপ্রার্থীরা একে অপরের বিরুদ্ধ অভিযোগের পাহাড় তুলে ধরেন। নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়া নিয়েও কোনো কোনো প্রার্থী এ সময় আশঙ্কা প্রকাশ করেন।
গতকাল শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে ধানের শীষের মেয়রপ্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের বিনোদপুর বাজার থেকে তার নির্বাচনী গণসংযোগ শুরু করেন। এরপর বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু ও হাবিবুর রহমান হাবিবসহ দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে মির্জাপুর, মোহনপুর, নতুন ও পুরাতন বুধপাড়া, মেহেরচন্ডি এলাকায় গণসংযোগ করেন বুলবুল।
এদিকে নৌকার মেয়রপ্রার্থী এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন বেলা ১১টা পর্যন্ত ধীরগতিতে গণসংযোগ করেন। এরপর তিনি চেম্বার ভবনে মেয়রপ্রার্থীদের নিয়ে অনুষ্ঠিত গোলটেবিল বৈঠকে যোগ দেন। দুপুরে খুলনা সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেককে সঙ্গে নিয়ে নগরীর দরগা মসজিদে জুমার নামাজ পড়েন। পরে নগরীর বঙ্গবন্ধু কলেজে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় যোগ দেন লিটন।

অন্যদিকে ‘কেমন নির্বাচন চাই’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে নৌকার মেয়রপ্রার্থী ও নগর আওয়ামী লীগ সভাপতি এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন, ধানের শীষের প্রার্থী ও নগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (কাঁঠাল প্রতীক) মেয়রপ্রার্থী মো. হাবিবুর রহমান ও স্বতন্ত্র মেয়রপ্রার্থী (হাতি প্রতীক) এডভোকেট মুরাদ মোর্শেদ উপস্থিত ছিলেন।
এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, আমি জোর দিয়ে বলছি, আমাদের পক্ষ থেকে নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট হোক বা কোনো অনিয়ম হোক; এমন কোনো কাজ আমরা করতে দেব না। আমাদের কর্মীদের ইতোমধ্যেই কঠোরভাবে সতর্ক করা হয়েছে, অতি উৎসাহী হয়ে কারও কিছু করার দরকার নেই; যাতে নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট হয়। এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের সামনে আমার ছোট ভাই মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের সঙ্গে কথা বলে নিয়েছি। অতি উৎসাহী কর্মীরা যে দলেরই হোক আমরা যেন তাদের নিবৃত করি।
গোলটেবিল বৈঠকে মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, রাজশাহীতে এখন পর্যন্ত অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের কোনো আলামত দেখছি না। নির্বাচন কমিশন ও প্রশাসনের কর্মকর্তারা সরকারি দলের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করছেন। ভোটাররা নির্বিঘেœ কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে পারবেন কিনা তার পরিবেশ এখনো তৈরি হয়নি। তিনি আরো বলেন, আমার সাড়ে ১৪০০ পোলিং এজেন্টকে নিজ বাড়ি থেকে ভোটকেন্দ্র পর্যন্ত যাওয়া নিশ্চিত করতে হবে।