খুলনায় হাসপাতাল কর্মচারীর মরদেহ উদ্ধার

আগের সংবাদ

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ৫ শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক পারাপারের অপেক্ষায়

পরের সংবাদ

চার বিভাগে ‘মাইল্ড হিট ওয়েভ’

বছরের উষ্ণতম দিনে নগরবাসীর নাভিশ্বাস!

প্রকাশিত হয়েছে: জুলাই ২০, ২০১৮ , ১২:০৮ অপরাহ্ণ | আপডেট: জুলাই ২০, ২০১৮, ১২:০৯ অপরাহ্ণ

রাজধানীতে বছরের উষ্ণতম দিন ছিল গতকাল বৃহস্পতিবার। বর্ষাকালের মাঝামাঝি এসেও মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে চলায় ঢাকাসহ সারা দেশে বাড়ছে তাপমাত্রা, যার ধারাবাহিকতায় গতকাল চলতি বর্ষা মৌসুমের সবচেয়ে উষ্ণতম দিনটি পার করল নগরবাসী। অসহ্য গরমে চলাফেরাই দায় হয়ে ওঠে। আর এটিকে ‘মাইল্ড হিট ওয়েব’ (লু হাওয়া) পর্যায় বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

আবহাওয়াবিদ এ কে এম নাজমুল হক গতকাল বৃহস্পতিবার জানান, ঢাকায় গতকাল সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৭ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস, আর দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল রাজারহাট কুড়িগ্রামে ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা গত মার্চ-এপ্রিল-মে তিন মাসের যে কোনো দিনের চেয়ে বেশি। এ কে এম নাজমুল হক বলেন, আজ (বৃহস্পতিবার) ঢাকায় বছরের সবচেয়ে গরম দিন ছিল। সেই সঙ্গে শ্রাবণের বৃষ্টিহীন দিনে বাতাসে আর্দ্রতা বেশি থাকায় গরম অনুভ‚ত হয়েছে তাপমাত্রার চেয়েও বেশি। পাশাপাশি বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপের প্রভাবও রয়েছে বলে জানান তিনি।

এই আবহাওয়াবিদ বলেন, এটিকে আমরা ‘মাইল্ড হিট ওয়েভ’ বলে জানি। ঢাকা, ময়মনসিংহ, সিলেট ও রাজশাহী- এ চার ডিভিশন এবং কুমিল্লা, সীতাকুণ্ডসহ আরো দু-তিনটি অঞ্চলে এ মাইল্ড হিট ওয়েভ চলছে, যাকে বাংলায় লু-হাওয়া বলে অনেকে জানে।
এদিকে এ অসহ্য গরমে নগরজীবনে নাভিশ্বাস। তীব্র গরমে অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। গরমে রাস্তাঘাটে পানি ও সরবতের চাহিদা বেড়ে গেছে। রিকশা ও

ঠেলাওয়ালাদের গরমে ক্লান্ত হয়ে গাছের ছায়ায় ঝিমোতে দেখা গেছে। গরমে অনেকের ফেরিন্সের ক্ষতি হওয়ায় গলার স্বর পড়ে যাচ্ছে। এমনকি গরমে জ্বর ও সর্দি কাশি বেড়ে গেছে। বিশেষ করে বাচ্চা ও বৃদ্ধরা তীব্র উষ্ণতাজনিত এসব রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে সেবা নিতে ভিড় করছেন বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গতকাল দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল রাজারহাট কুড়িগ্রামে ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, ময়মনসিংহে ৭৩ দশমিক ৮ ডিগ্রি ও রংপুরে ৩৭ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গত বুধবার ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৪ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে ঢাকার তাপমাত্রা ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেড়েছে। তবে শ্রাবণের শুরুতে বৃষ্টি না থাকায় এমন আবহাওয়াকে অস্বাভাবিক বলে মনে করছেন আবহাওয়াবিদ নাজমুল। বৃষ্টি থাকলে তাপমাত্রা এতটা বাড়ত না। তবে আজ থেকে ধীরে ধীরে তাপমাত্রা কমবে এবং দু-একদিনের মধ্যে বৃষ্টির সম্ভাবনার কথাও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, এর আগে ২০১৪ সালের ২২ এপ্রিল ঢাকার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা উঠেছিল ৪০ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা পাঁচ দশকে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল। তার আগে ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড হয়েছিল ২০০৯ সালের ২৭ এপ্রিল ৩৯ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।