বেড়েছে অধিকাংশ ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা

আগের সংবাদ

মেসেজে বিয়ের ডেট!

পরের সংবাদ

অভিনয়ে রজতজয়ন্তী

প্রকাশিত হয়েছে: জুলাই ২, ২০১৮ , ২:২০ অপরাহ্ণ | আপডেট: জুলাই ২, ২০১৮, ২:২০ অপরাহ্ণ

অভিনয়ের প্রতি শুধু ভালোবাসা দিয়েই অভিনয় জীবনের ‘রজতজয়ন্তী’ সময় পার করে ২৬ বছরে পৌঁছেছেন অভিনেত্রী তমালিকা কর্মকার। তমালিকার নাট্যগুরু অভিনেতা ও নির্দেশক মামুনুর রশীদের হাত ধরে নাট্যদল ‘আরণ্যক’-এর হয়ে মঞ্চে তমালিকার অভিনয়ে যাত্রা শুরু হয়। সেই থেকে এখনো ‘আরণ্যক’র হয়ে অভিনয় করছেন মঞ্চে, পাশাপাশি টিভি নাটকে এবং চলচ্চিত্রে। এই পথচলায় নানান সংগ্রামের পথ পেরিয়ে তমালিকা নিজেকে পরিণত করেছেন এ দেশের নাট্যাঙ্গনের একজন গুণী অভিনেত্রীতে। ‘আরণ্যক’র হয়ে তমালিকাকে মঞ্চে প্রথম দেখা যায় আজিজুল হাকিমের নির্দেশনায় ‘পাথর’ নাটকে। এরপর বহু মঞ্চ নাটকে অভিনয় করেছেন তমালিকা।
সর্বশেষ গত ২৮ জুন ‘রাঢ়াং’-এর ১৮০তম মঞ্চায়নে অভিনয় করেন তিনি। এতে তমালিকা অভিনয় করছেন শ্যামলী চরিত্রে। নাটকটির রচয়িতা ও নির্দেশক মামুনুর রশীদ। গেল ঈদে তমালিকা অভিনীত সালাহ উদ্দিন লাভলু পরিচালিত ‘ফেসবুক ভালোবাসা’, চয়নিকা চৌধুরীর ‘দুপুর বেলার গল্প ছোট’, অনিমেষ আইচের ‘গুলনেহার’সহ বিটিভিতে আজাদ আবুল কালামের একটি ঈদ নাটকে অভিনয় করেন। প্রতিটি নাটকেই তমালিকার অভিনয়ে যথারীতি ভিন্নতা ছিল। এ দিকে আজ তমালিকার জন্মদিন। জন্মদিন প্রসঙ্গে তমালিকা কর্মকার বলেন, জন্মদিনে কখনোই আমি নিজে কোনো কিছু করি না। থাকে না কোনো বিশেষ আয়োজন, রাখি না শুটিং। একেবারেই নিজের মতো করে নিজের ঘরে সময় কাটাই। আমি কৃতজ্ঞ দর্শকের কাছে যে তারা আমার অভিনীত নাটক দেখার জন্য এখনো আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করেন। আমি অবশ্যই আমার নাট্যগুরু মামুনুর রশীদ স্যারের কাছে কৃতজ্ঞ। কারণ তার হাত ধরেই আমার একটু একটু করে অভিনয়ে পথচলা। সারাজীবন আমি অভিনয় করে যেতে চাই। শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত অভিনয়ই করতে চাই।