ড্র করেও নকআউট পর্বে ডেনমার্ক, গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স

আগের সংবাদ

গাজীপুরের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম

পরের সংবাদ

হতাশ নয় ভক্তরা, নকআউটে আর্জেন্টিনা

প্রকাশিত হয়েছে: জুন ২৭, ২০১৮ , ১:৫০ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: জুলাই ১৭, ২০১৮, ১১:০৩ পূর্বাহ্ণ

সেন্ট পিটার্সবার্গের দিকে তাকিয়ে ফুটবল বিশ্ব। সোশ্যাল মিডিয়াতে ভক্তদের জটিল সব হিসেব নিকেশ। তবে হতাশ হন নি মেসি ভক্তরা। খেলার ১৪ মিনিটে এভার বানেগার পাসে লিওনেল মেসির গোল বিশ্বকাপে টিকে থাকার স্বপ্ন দেখায় নীল-সাদা জার্সিধারীদের। যদিও ৯ মিনিটে আহমেদ মুসার শটটি গোলবারের উপর দিয়ে চলে যায়। চার মিনিট পর হাভিয়ের মাসচেরানো পা থেকে বল হারালে কেলেচি আইহিনাচো আর্জেন্টিনার রক্ষণকে একটু চাপে ফেলেছিলেন। তবে মাসচেরানোই ভুল শুধরে নেন তাকে প্রতিহত করে। আগের দুই ম্যাচে মাত্র এক পয়েন্ট পাওয়া আর্জেন্টিনার এই ম্যাচে কোনও ভুল করা চলবে না। এই কথা মাথায় রেখে হোর্হে সাম্পাওলি অভিজ্ঞদের ওপর আস্থা রেখেই একাদশ নামিয়েছিলেন নাইজেরিয়ার বিপক্ষে। ৩৩ মিনিটের পর ফ্রি কিক থেকে মেসির শট বাঁ দিকে ঝাপিয়ে পড়ে ঠেকান উজোহা। বল উজোহার হাত ছুঁয়ে পোস্টে আলতো স্পর্শ করে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। হারলেই বিদায়, ড্র যথেষ্ট নয় এমন ভাবনা থেকেই প্রথমার্ধ আর্জেন্টিনা শেষ করে ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে।


এগিয়ে থেকেই মেসি ভক্তরা, আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপের নকআউট পর্বে ওঠার ক্ষণ গুণছিল। কিন্তু নাটকের তখনো অনেক বাকি ছিল। দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকে আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে নাইজেরিয়া। ষষ্ঠ মিনিটে সমতা ফেরায় আফ্রিকার দলটি।
৪৯ মিনিটে এতেবোর কর্নার কিক বক্সে ঢোকার মুহূর্তে মাসচেরানো ফাউল করেন বোলোগানকে। ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি দেন পেনাল্টির সিদ্ধান্ত, মাসচেরানো দেখেন হলুদ কার্ড। ১২ গজ দূর থেকে লক্ষ্যে শট নেন ভিক্টর মোসেস। ৫১ মিনিটে তার ধীর গতির নিচু শটের বিপরীত দিকে ঝাপিয়ে পড়েন আরমানি, বল জড়ায় জালে। সমতা ফেরানো আনন্দে মাতে আফ্রিকানরা।

নাইজেরিয়া দারুণ সুযোগ পায় ৭২ মিনিটে। আর্জেন্টিনার রক্ষণের ফাঁক থাকার সুযোগ নিয়ে বক্সের বেশ দূর থেকে শট নেন এনদিদি। তার জোরালো শট ক্রসবারের উপর দিয়ে চলে যায়। চার মিনিট পর আরেকটি পেনাল্টির শঙ্কায় পড়ে আর্জেন্টিনা। মার্কোস রোহো ডিবক্সের মধ্যে বল বিপদমুক্ত করেন, কিন্তু তার মাথা ছুঁয়ে হাতে লাগে। ভিএআর দেখে রেফারি সিদ্ধান্তে পৌঁছান, ইচ্ছা করে বল হাত দিয়ে নিয়ন্ত্রণ করেননি রোহো।


৮১ মিনিটে রোহোর পাস বক্সের মধ্যে পেয়েও কাজে লাগাতে পারেননি হিগুয়েইন। তার শট অনেক উঁচু দিয়ে চলে যায় মাঠের বাইরে। দুই মিনিট পর আরমানি দারুণ সেভে নাইজেরিয়াকে এগিয়ে যেতে দেননি। শেষে, ৮৬তম মিনিটে আর্জেন্টিনাকে এগিয়ে নেন মার্কোস রোহো। মেরকাদোর ক্রসে দারুণ ভলিতে জাল খুঁজে নেন ম্যানচেস্টার ইউনাটেডের এই ফরোয়ার্ড। শেষে চার মিনিটের এক্সট্রা সময়ে ডিফেন্স খেলে মেসির দল। অসম্ভবকে সম্ভব করেই রাশিয়া বিশ্বকাপে নিজেদের বাঁচা-মরার ম্যাচে নাইজেরিয়াকে ২-১ গোলে হারিয়ে আসরের শেষ ষোলো নিশ্চিত করেছে আর্জেন্টিনা। এদিকে মাঠে খেলা দেখা বাংলাদেশী পতাকাবাহী আর্জেন্টাইন ভক্ত শাহাদাৎ চৌধুরী বাবু জানান, তারা সেন্ট পিটার্সবার্গের পুরো মাঠ জুড়েই আর্জেন্টিনার ভক্তই বেশি দেখেছেন। দ্বিতীয়ার্ধে নাইজেরিয়া সমতা আনলেও কিছু দর্শক কান্নাকাটি শুরু করে দিয়েছিল। তবে সবাই আশাবাদি ছিল শেষ ষোলে যাবেই সবাই। আমরা ৭ জন বন্ধু এই বাঁচা মরার লড়াই দেখতে এবং মাঠে বসে উৎসাহ দিতে এসেছি। আর্জেন্টিনা এগিয়ে যাক আমরা চাই।

উল্লেখ্য, ‘ডি’ গ্রুপে একই সঙ্গে চলা অন্য ম্যাচেও আইসল্যান্ডকে ২-১ গোলে হারিয়েছে ক্রোয়েশিয়া। শেষ ষোলোতে উঠেছে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে।
আগামী শনিবার কাজান অ্যারেনায় শেষ ষোলোর ম্যাচে ফ্রান্সের মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা।