কুর্তি, কেপ ও টপসে নতুনত্ব নিয়ে আইকনিক

আগের সংবাদ

চিকিৎসার অভাবে চোখ হারাতে বসেছেন হাজেরা বেগম

পরের সংবাদ

তিন মাস ধরে পানির পাম্প বিকল

মোহনগঞ্জ রেল স্টেশনে যাত্রী দুর্ভোগ চরমে

প্রকাশিত হয়েছে: জুন ২৩, ২০১৮ , ১২:৫৬ অপরাহ্ণ | আপডেট: জুন ২৩, ২০১৮, ১২:৫৬ অপরাহ্ণ

নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ রেল স্টেশনের পানির পাম্পটি প্রায় ৩ মাস ধরে বিকল হয়ে পড়ে আছে। এতে করে প্রতিদিন রেল স্টেশনে আগত হাজারো যাত্রীসাধারণকে পানির অভাবে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। যাত্রীদের অভিযোগ, এ ব্যাপারে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের গাফিলতির কারণেই দীর্ঘদিন ধরে তাদের এ দুর্ভোগের শিকার হতে হচ্ছে।
জানা গেছে, এ স্টেশন থেকে প্রতিদিন ঢাকাগামী ২টি আন্তঃনগর ও ১টি কমিউটার ট্রেনসহ মোট ৫টি ট্রেন চলাচল করে থাকে। এটি হাওরাঞ্চলের সর্বশেষ রেল স্টেশন হওয়ায় এ স্টেশন থেকে প্রতিদিন হাজারো যাত্রী রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে যাতায়াত করে থাকেন। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ এ রেল স্টেশনটির একমাত্র পানির পাম্পটি গত প্রায় তিন মাস ধরে বিকল হয়ে পড়ে থাকায় দূর-দূরান্তের যাত্রীরা এ স্টেশনে এসে তাদের জন্য নির্ধারিত টয়লেটগুলোতে পানি না থাকায় তাদের প্রকৃতির কাজ সাড়াসহ হাত-মুখ ধোয়াও সম্ভব হচ্ছে না।
সরেজমিন রেল স্টেশনে গিয়ে যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে তাদের দুর্ভোগের বিষয়টি জানা যায়। এ সময় উপজেলার প্রত্যন্ত হাওরাঞ্চলের গাগলাজুর-মান্দারবাড়ী গ্রামের বাসিন্দা গোলাপ মিয়া, জুয়েল মিয়া, কামরুল মিয়া ও আবু তালেব ওই দিন ঢাকাগামী কমিউটার ট্রেনের টিকেট কিনে স্টেশনে ট্রেনের অপেক্ষায় ছিলেন। তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, বেলা সাড়ে ১১টায় রেল স্টেশনে এসে পৌঁছি কিন্তু স্টেশনের কোনো টয়লেটে পানি না থাকায় প্রকৃতির কাজ সারতে গিয়ে চরম বিপাকে পড়তে হয়। নিরুপায় হয়েই পরে এক আত্মীয়ের বাসায় গিয়ে এ কাজ সারতে হয়েছে। একই ধরনের মন্তব্য করেন ট্রেনের অপেক্ষায় থাকা অনেক যাত্রী।
মোহনগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার গোলাম রব্বানী জানান, স্টেশনের একমাত্র পানির পাম্পটি চলতি বছরের ২৩ মার্চ থেকে বিকল হয়ে রয়েছে। এতে পানির সমস্যায় শুধু যাত্রীসাধারণই নয়, আমরাদেরও সমস্যা ভোগ করতে হচ্ছে। তিনি বলেন, পানির পাম্পটি মেরামত করার জন্য একাধিকবার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে জানিয়েছি। তারা সমস্যার সমাধান না করলে আমার কিছুই করার নেই।
এ ব্যাপারে কথা বলার জন্য রেলওয়ের বিভাগীয় প্রকৌশলী ঢাকা-১ আব্দুস সালামের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করলেও তিনি রিসিভ করেননি।