ওয়ারীতে ১৫ শ দুঃস্থ মানুষের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ

আগের সংবাদ

বিএনপি পুরোপুরি অসৎ : জয়

পরের সংবাদ

দুরন্ত টিভিতে জ্যোৎস্নালিপির ‘রাখাল ছেলে ও সাতপরি’

প্রকাশিত হয়েছে: মে ১৬, ২০১৮ , ৯:৪১ অপরাহ্ণ | আপডেট: মে ১৬, ২০১৮, ৯:৫৩ অপরাহ্ণ

শিশুসাহিত্যিক জ্যোৎস্নালিপির লেখা ‘রাখাল ছেলে ও সাতপরি’ গল্পটি দুরন্ত টিভির জনপ্রিয় শিশু ধারাবাহিক ‘গল্প শেষে ঘুমের দেশে’তে প্রচারিত হবে ১৮ মে শুক্রবার রাত ৯টায়। অভিনেত্রী শর্মিলী আহমেদ শোনাবেন রাখাল ছেলে ও সাতপরি’র সেই মজার গল্প। এটি প্রযোজনা করেছেন মেহেদী হাসান স্বাধীন ও ফাহিমা চৈতি।

‘রাখাল ছেলে ও সাতপরি’ গল্পটিতে দেখা যাবে, শ্যামাবরণ রাখাল বালক দুখু প্রতিদিনই একটা কৃষ্ণচূড়া গাছের নিচে বসে বাঁশি বাজায়। গরীবের ঘর, ঠিকমতো খাবার জোটে না। মা একদিন রাগ করে বলে- হতচ্ছছাড়া বাঁদর, সারাদিন শুধু বনে-বাদারে ঘুরিস। দুখুর বাঁশি বাজাতেই ভালো লাগে। পরিরা দুখুকে একটা বাঁশি দিয়েছে। তারা বলেছে খুব ভোরে ওঠে এই বাঁশি বাজালে তার সুর শুনে ওরা চলে আসবে। দুখুর বাঁশির সুরে পরিরা ডানা মেলে আকাশ থেকে উড়ে আসে। পৃথিবীতে এসে ওরা ডানা খুলে ওর বাঁশির সুরে নাচে। সূর্য ওঠার আগেই ওদের ডানা পড়ে আকাশে উড়তে হয়। এর ব্যত্যয় হলেই ভীষণ বিপদ। একদিন দুখুর প্রিয় লালপরি কোথাও তার পাখা খুঁজে পায় না। দুখু লালপরির পাখা তন্ন তন্ন হয়ে খোঁজে। আর মনে মনে অনুশোচনা করে, তার বোকামির জন্য। গল্প এগিয়ে চলে। দুখু শেষ পর্যন্ত কি পেরেছিল লালপরিকে বাঁচাতে?

জ্যোৎস্নালিপি বলেন, শিশুদের মনোস্তত্ব বিকাশে দুরন্ত টিভি বেশ ভালো ভূমিকা রাখছে। আমাদের দেশে ইলেকট্রনিক মিডিয়ার ব্যাপক বিকাশ হলেও শিশুদের জন্য আলাদা করে টিভি চ্যানেলের কথা কেউ ভাবেনি। বিদেশি চ্যানেলের ভীড়ে দুরন্ত টিভি তাদের জন্য আর্শিবাদ হয়ে এসেছে। শিশুরা বাংলাভাষায় তাদের উপযোগি অনুষ্ঠান দেখতে পারছে।