বিজলীর 'ফার্স্ট লুক' প্রকাশ

আগের সংবাদ

নিহত শিক্ষার্থীদের স্মরণে দেশের সব মেডিকেলে তিনদিনের শোক

পরের সংবাদ

বিএনপি লালদীঘি মাঠে সমাবেশের অনুমতি পাচ্ছে না

প্রকাশিত হয়েছে: মার্চ ১৩, ২০১৮ , ১০:৩৩ অপরাহ্ণ | আপডেট: মার্চ ১৩, ২০১৮, ১০:৩৩ অপরাহ্ণ

দুর্নীতির দায়ে কারাগারে থাকা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বৃহস্পতিবার লালদীঘি মাঠে জনসভা করার অনুমতি পায়নি বিএনপি। জামায়াত-শিবির বিএনপির ভেতরে ঢুকে নাশকতা তৈরি করে তার দায় পুলিশ প্রশাসনসহ সরকারের ওপর চাপানোর ষড়যন্ত্র করছে, এমন আশঙ্কা ও সার্বিক নিরাপত্তা বিবেচনায় নগর পুলিশ লালদীঘি মাঠে বিএনপির জনসভার অনুমতি দিচ্ছে না। চট্টগ্রাম মহানগর, উত্তর ও দক্ষিণ জেলা বিএনপির উদ্যোগে এ জনসভার ডাক দেয়া হয়েছিল।

এদিকে লালদীঘি মাঠেই জনসভা করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করে অন্য কোনো ভেন্যুতে জনসভা করবে না বলে জানিয়েছেন বিএনপি নেতারা। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের এক শীর্ষ কর্মকর্তা ভোরের কাগজকে বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে বিএনপি জনসভা করলে নিরাপত্তা বিঘিœত হবে বলে মনে করা হচ্ছে। জনসভায় বহিরাগতরা এসে যে কোনো ধরনের নাশকতা চালাতে পারে। সে ক্ষেত্রে নগরবাসীর নিরাপত্তা, বিএনপির নেতাকর্মীদের নিরাপত্তার স্বার্থে, সর্বোপরি সার্বিক নিরাপত্তা বিবেচনায় লালদীঘি মাঠে বিএনপির জনসভার অনুমতি দেয়া হচ্ছে না। সে ক্ষেত্রে সিএমপির পক্ষ থেকে অন্য কোনো ভেন্যুর প্রস্তাব করা হবে। বিএনপির নেতারা যদি অন্য কোনো ভেন্যু পছন্দ করেন, তা বিবেচনা করবে সিএমপি।

তবে লালদীঘি মাঠের অনুমতি পাওয়ার ক্ষেত্রে শতভাগ আত্মবিশ্বাসী বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ভোরের কাগজকে বলেন, এর মধ্যে আওয়ামী লীগ অনেকগুলো সমাবেশ করেছে, তারা যদি সমাবেশের অনুমতি পায়, তাহলে দেশের সর্ববৃহৎ (তার ভাষায়) দল বিএনপি কেন পাবে না? দেশে যদি সংবিধান থাকে, নাগরিক অধিকার থাকে, তাহলে অবশ্যই লালদীঘিতে সমাবেশের অনুমতি দিতে হবে। লালদীঘি মাঠের অনুমতি পাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী নগর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবু সুফিয়ানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, অনুমতি না পাওয়ার চিন্তা করছি না। আমরা আশাবাদী। অন্য কোনো ভেন্যুর প্রস্তাব প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সে ক্ষেত্রে সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

১৫ মার্চের জনসভা সফল করতে গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা আমীর খসরুর মেহেদীবাগস্থ বাসভবনে চট্টগ্রাম মহানগর, উত্তর ও দক্ষিণ জেলা বিএনপির যৌথ প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় আমীর খসরু মাহমুদ ছাড়াও বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা বেগম রোজী কবীর, এস এম ফজলুল হক, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম, দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভাপতি জাফরুল ইসলাম চৌধুরী, নগর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবু সুফিয়ান, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর, কেন্দ্রীয় নেতা ডা. মহসিন জিল্লুর উপস্থিত ছিলেন।