কুমিল্লায় দুই পক্ষের সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত ১০

আগের সংবাদ

বিজলীর 'ফার্স্ট লুক' প্রকাশ

পরের সংবাদ

আপনারা ধৈর্য ধরেন, কেউ হতাশ হবেন না : মওদুদ

প্রকাশিত হয়েছে: মার্চ ১৩, ২০১৮ , ১০:২৫ অপরাহ্ণ | আপডেট: মার্চ ১৩, ২০১৮, ১০:২৫ অপরাহ্ণ

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া মুক্ত হয়ে জনগণের মধ্যে ফিরে আসবেন বলে উল্লেখ করেছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ। বিএনপির নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আপনারা ধৈর্য ধরেন, কেউ হতাশ হবেন না।’

আজ মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন মওদুদ। জিয়া পরিষদের আয়োজনের সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।

মওদুদ আহমদ অভিযোগ করেন, ‘নিম্ন আদালতের মাধ্যমে সরকার খালেদা জিয়ার মুক্তি বিলম্বে কলাকৌশল করছে। যতই ষড়যন্ত্র করা হোক না কেন খালেদা জিয়া মুক্ত হয়ে জনগণের কাছে ফিরে আসবেন।’

বিএনপির এই নেতা আরও বলেন, ‘নিম্ন আদালত এখন সুপ্রিম কোর্টের অধীনে নেই। এটা চলে গেছে নির্বাহী বিভাগের অধীনে। এই যে দেখেন কুমিল্লার মামলায় ওয়ারেন্ট। এতদিন চলছে ওয়ারেন্ট ইস্যু নেই। এখন যেহেতু উচ্চ আদালতে উনি (খালেদা জিয়া) জামিন পেয়ে গেছেন, এখন ওয়ারেন্ট পাঠিয়ে দিয়েছেন। উদ্দেশ্য ২৮ মার্চ পর্যন্ত খালেদা জিয়া যেন জেলখানায় থাকে তার ব্যবস্থা করা। এটা হীনমন্যতা ছাড়া আর কিছু না। কিন্তু তাতে লাভ হবে না।’

মওদুদ বলেন, ‘খালেদা জিয়া বিরুদ্ধে এখন যত মামলা আছে সব স্থগিত আছে, নিয়ন্ত্রণে আছে। চারটা মামলার—দুইটা ঢাকায়, একটা নড়াইল এবং একটা কুমিল্লায়।’

‘খালেদা জিয়ার মুক্তি একদিনের জন্য বিলম্বিত হলে তার জনপ্রিয়তা দ্বিগুণ বাড়বে বাংলাদেশে। বিলম্ব করতে চান? করেন। আমার নেত্রীর কষ্ট হবে ঠিকই কিন্তু তার জনপ্রিয়তা আপনারা ঠেকাতে পারবেন না।’

উচ্চ আদালতের খালেদা জিয়ার জামিনের বিরুদ্ধে সরকারের আপিল প্রসঙ্গে মওদুদ বলেন, ‘আমরা আশা করেছিলাম বিএনপি চেয়ারপারসন আজকে (মঙ্গলবার) অথবা কালকের মধ্যে আমাদের মাঝে ফিরে আসবেন। তাদের (সরকার) অধিকার আছে আপিল করার। তারা আজকে আপিল করতে গিয়েছিলেন। তারা সময় চেয়েছেন। আমরা বলেছি কালকে ফুল বেঞ্চে শুনানি হবে।’

‘কালকে (বুধবার) ইনশাল্লাহ এক নম্বরে থাকবে খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয়টা। আমরা মনে করি, এই প্রক্রিয়ায় উচ্চতম আদালত হাইকোর্টের জামিনের রায় বহাল রাখবেন কোনো সন্দেহ নেই। কিন্তু সন্দেহ হলো এযেন ১৫ দিন বিলম্ব হলো। এটা তো আদালত করে নি, সরকার করেছে। সরকারি কর্মচারিরা করেছে যারা এটা নিয়ে ঘাটাঘাটি করেন।’

‘খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে তাকে সঙ্গে নিয়েই বিএনপি নির্বাচনে যাবে। সেই নির্বাচন একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে। সেই নির্বাচনে ধানের শীষের পক্ষে জোয়ার উঠবে। দেশের মানুষ যখন খালেদা জিয়ার পক্ষে মাঠে নামবে তখন বাংলাদেশের রাজনীতির চিত্র পাল্টে যাবে। আপনারা ধৈর্য ধরেন, কেউ হতাশ হবে না।’

সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান কবীর মুরাদের সভাপতিত্বে ও সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব আবদুল্লাহিল মাসুদের পরিচালনায় বক্তব্য দেন অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস, অধ্যাপক এসএম হাসান তালুকদার, অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন, অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ, প্রকৌশলী রুহুল আলম, শহীদুল ইসলাম শহীদ প্রমুখ।