আইফোনে ম‍্যাসেজ ব্লক করার কৌশল

আগের সংবাদ

টাকা গণনার যন্ত্র আনলো গ্লোবাল ব্র্যান্ড

পরের সংবাদ

ফোরজি লাইসেন্স পাচ্ছে না সিটিসেল

প্রকাশিত হয়েছে: ফেব্রুয়ারি ৬, ২০১৮ , ১২:৫৯ অপরাহ্ণ | আপডেট: ফেব্রুয়ারি ৬, ২০১৮, ১২:৫৯ অপরাহ্ণ

বিনিয়োগকারী না পাওয়ায় আবারও জেগে ওঠার স্বপ্ন শেষ হয়ে যাচ্ছে দেশের সবচেয়ে পুরনো মোবাইল ফোন অপারেটর সিটিসেলের। অপারেটরটির নতুন স্পেকট্রাম কেনার জন্য নিলামে বসতে পারছে না। কেননা এ জন্য অর্থায়নের সংস্থান করতে পারেনি সিটিসেলের উদ্যোক্তারা। তাই এটি আর চতুর্থ প্রজন্মের মোবাইল প্রযুক্তির লাইসেন্সের জন্য বিবেচিত হবে না বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন – বিটিআরসির শীর্ষ এক কর্মকর্তা। অন্য বড় অপারেটরগুলো বর্তমানে থ্রিজি সেবা দেওয়ায় সেগুলো নীতিমালা ‍অনুসারে সরাসরি লাইসেন্স পাওয়ার যোগ্য বিবেচিত হবে। শুধু ফোরজির লাইসেন্স ফি’র সাড়ে ১১ কোটি টাকা দিলেই লাইসেন্স পেয়ে যাবে।
অন্যদিকে সিটিসেল যেহেতু থ্রিজিতে নেই, তাই এটিকে নতুন করে স্পেকট্রাম কেনার মাধ্যমে ফোরজি’র লাইসেন্সের শর্ত পূরণ করতে হবে। নীতিমালাতে এটি উল্লেখ আছে বলে জানান কমিশনের ওই কর্মকর্তা।
এর আগে ১৪ জানুয়ারি লাইসেন্সের জন্য আবেদন করা সিটিসেল যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়ায় টিকে যাওয়ায় এক বছরেরও বেশি সময় ধরে সেবা বন্ধ রাখা অপারেটরটির আবার সচল হওয়ার বড় সুযোগ তৈরি হয়েছিল।
গত সোমবার স্পেকট্রাম নিলামের জামানত জমা দেওয়ার আগ পর্যন্ত অবশ্য লাইসেন্স পাওয়ার প্রতিটি ধাপেই তাদের সরব উপস্থিতি ছিল। বরং বলা যায় স্পেকট্রাম নিলামে গ্রামীণফোন, রবি ও বাংলালিংকের পাশে সিটিসেলকে পেয়ে বিটিআরসি একটু বাড়তি শক্তি পেয়েছিল।
বিটিআরসির সূত্র বলছে, এর আগে থ্রিজির সময়েও সিটিসেল লাইসেন্স এবং স্পেকট্রাম নিলামে বসার জন্য আবেদন জমা দিয়েছিল। অন্যান্য প্রস্তুতিও নিয়েছিল নিলেও কিন্তু শেষ পর্যন্ত তারা আর এগোয়নি।
অন্যদিকে ফোরজির সময় অনেক চেষ্টা করেও বিটিআরসি নতুন কোনো অপারেটরকে আগ্রহী করতে পারেনি। ফলে বড় তিন অপারেটরের পাশাপাশি শুধু টেলিটককেই পাওয়া যাবে ফোরজি অপারেটর হিসেবে।
তবে অপারেটরগুলোর মধ্যে টেলিটক আগেই জানিয়ে দিয়েছে, তারা নতুন করে কোনো স্পেকট্রাম কিনবে না।
আগামি ১৩ ফেব্রুয়ারি স্পেকট্রাম নিলামের সময় নির্ধারণ করেছে বিটিআরসি। পর দিনই লাইসেন্স ও স্পেকট্রামের চূড়ান্ত বিজয়ীদের নাম প্রকাশ করবে বিটিআরসি।

বিষয়: