দিনাজপুরে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত

আগের সংবাদ

কম দামে ক্যাননের ডিএসএলআর

পরের সংবাদ

জঙ্গি আস্তানায় দুই জোড়া পা, আটক ৩

প্রকাশিত হয়েছে: নভেম্বর ২৮, ২০১৭ , ১২:১৯ অপরাহ্ণ | আপডেট: নভেম্বর ২৮, ২০১৭, ১২:১৯ অপরাহ্ণ

চাঁপাইনবাবগঞ্জের চরের জঙ্গি আস্তানায় র‌্যাবের বোমা বিশেষজ্ঞ দল পৌঁছেছে। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে দলটি ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর পর বাড়িটি থেকে বিভিন্ন আলামত সংগ্রহ করছে। পুড়ে ছারখার হওয়া বাড়িটির ভেতরে তারা মানুষের দুই জোড়া পা দেখতে পেয়েছেন তারা। অন্যদিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বাড়ির মালিকসহ তিনজনকে আটক করা হয়েছে।

র‌্যাব-৫ এর মেজর এএম আশরাফুল ইসলাম এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, ভোরে বাড়িটিতে বিস্ফোরণের কারণে আগুন ধরে গেলে ঢাকা থেকে র‌্যাবের বোমা বিশেষজ্ঞ দলকে ডেকে আনা হয়। দলটি সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। এখন তারা কাজ শুরু করেছেন।

র‌্যাবের এই কর্মকর্তা জানান, আগুনে খড়ের বাড়িটির সবকিছুই পুড়ে গেছে। শুধু কয়েকটি খুঁটি দাঁড়িয়ে আছে। তারা ছাইয়ের ভেতর মানুষের মৃতদেহের দুই জোড়া পা দেখেছেন। তবে ভেতরে লাশ আছে কি না তা এখন পর্যন্ত নিশ্চিত করতে পারেননি তিনি।

মেজর আশরাফুল জানান, রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার সাহাব্দিপুর এলাকায় বাড়িটির মালিক রাশিকুল ইসলামের শ্বশুর বাড়ি। মঙ্গলবার সকালে সেখান থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রাশিকুলসহ তিনজনকে আটক করে ক্যাম্পেও নেয়া হয়েছে। তারা ঘটনাস্থল থেকে ফিরে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করবেন। জানার চেষ্টা করবেন, অভিযানের সময় বাড়িটিতে কে বা কারা অবস্থান করছিলেন অথবা কাউকে ভাড়া দেয়া হয়েছিল কি না।

র‌্যাব জানিয়েছে, জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে মঙ্গলবার ভোরে পদ্মা নদীর ওপরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার মধ্যচর এলাকার এই বাড়িটি ঘিরে ফেলে র‌্যাব-৫ এর সদস্যরা। এ সময় ভেতরে থাকা সন্দেহভাজন জঙ্গিদের মাইকে আত্মসমর্পণের আহ্বান জানানো হয়। কিন্তু তারা এতে সাড়া না দিয়ে উল্টো র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে। নিক্ষেপ করা হয় বোমাও। এ সময় র‌্যাবও পাল্টা গুলি ছোঁড়ে। একপর্যায়ে বাড়িটিতে বিস্ফোরণ ঘটে আগুন ধরে যায়।

ঘটনাস্থল চর আলাতুলি ইউনিয়নের পাঁচ নম্বর ওয়ার্ডে। ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ওই ওয়ার্ডের সদস্য মেসবাউল হক কালু জানান, ভোর চারটার দিকে তিনি বোমা বিস্ফোরণের দুটি বিকট শব্দ শুনতে পেয়েছেন। ওই বাড়িটি আসলে একটি বাথানবাড়ি। সেখানে গরু-ছাগল রেখে লালনপালন করা হতো।

কালু জানান, বাথানবাড়ির মালিকের নাম রাশিকুল ইসলাম (৪০)। তার বাবার নাম আতাউর রহমান ওরফে কালু। আলাতুলি নতুনপাড়া গ্রামে তাদের আসল বাড়ি। সেই বাড়ি থেকে দুই কিলোমিটার দূরে বিলের ভেতর গরু-ছাগল পালনের জন্য ওই বাথানবাড়িটি করা হয়েছিল।

ইউপি সদস্য জানান, বাথানবাড়িটিতে রাশিকুল, তার স্ত্রী, ১৫ বছর বয়সী এক ছেলে এবং তার শ্বশুর থাকতেন। রাশিকুল ইসলাম ক্যান্সারে আক্রান্ত। বছর চারেক আগে গরু-ছাগল পালনের সুবিধার জন্য তিনি ওই বাথান বাড়িটি বানিয়েছিলেন। তবে নির্জন এলাকা হওয়ায় বাড়িটিতে জঙ্গি কার্যক্রম চালানোর ব্যাপারে তারা কিছু টের পাননি।