মানববোমা বুকে বেঁধে আছি

আগের সংবাদ

মেডিয়েশন সোসাইটির আহবায়ক কমিটি গঠন

পরের সংবাদ

অাগামীকাল কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারী সম্মেলনের উদ্বোধন, উঠবে রোহিঙ্গা ইস্যু

প্রকাশিত হয়েছে: নভেম্বর ৪, ২০১৭ , ৭:৩৪ অপরাহ্ণ | আপডেট: নভেম্বর ৪, ২০১৭, ৭:৪১ অপরাহ্ণ

এন রায় রাজা

এন রায় রাজা

সিনিয়র রিপোর্টার

অাগামীকাল রোববার সকাল সাড়ে দশটায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারী সম্মেলনের (সিপিসি) আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন। গত ১ নভেম্বর থেকে সিপিসির ৬৩ তম সম্মেলনের কার্যক্রম শুরু হলেও অাগামীকাল প্রধানমন্ত্রী সিপিএর পদাধীকারবলে সেকেন্ড প্যাট্রন হিসেবে এ সম্মেলনের শুভ সুচনা করবেন। এসময় বিশ্বের ৬৩ টি দেশের প্রায় ৬৫০ জন আইন প্রণেতা এবং দেশের গণ্যমান্য ব্যক্তিত্ব, রাজনীতিবিদ ও গণমাধ্যম কর্মীরা উপস্থিত থাকবেন। মোট দেড় হাজার অতিথি অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন। গত ১ থেকে ৪ তারিখ পর্যন্ত সম্মেলনের অনুষ্ঠান হোটেল রেডিসন ব্লুতে অনুষ্ঠিত হলেও অাগামীকাল রোববার থেকে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে দ্বিতীয় পর্যায়ে সম্মেলন শুরু হবে। যা চলবে আগামী ৮ নভেম্বর পর্যন্ত।

দেশে চলমান রোহিঙ্গা ইস্যুটি সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর ভাষনে বিশেষ স্থান পাবে বলে মনে করা হচ্ছে। এছাড়া কমনওয়েলথ দেশগুলোর আগত প্রতিনিধিদের এবিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষন করে এ সমস্যার আশু সমাধানে সিপিএ অন্থর্ভূক্ত দেশ গুলোর সার্পোট আদায় করার সুযোগ প্রধানমন্ত্রী তার ভাষণের মাধ্যমে গ্রহণ করবেন বলে জানা গেছে। সেকারণে আজকে সিপিসির ভাইস প্যাট্রন হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর এ ভাষন খুবই গুরুত্ব বহন করছে। এর আগে সিপিএ নির্বাহী কমিটির চেয়ারপার্সন ও জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী সিপিএর ফাস্ট প্যাট্রন বিট্রেনের রানী এলিজাবেথের লিখিত ভাষণ পড়ে শোনাবেন। এর মধ্য দিয়ে সম্মেলনের শুভ সূচনা হবে।

এর পরে অাগামীকাল বিকেল সাড়ে তিনটায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে সিপিসিতে আহত অতিথিদের সামনে ব্রিফিং করবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী। এখানে সংসদীয় কুটনীতির সর্বোচ্চ ব্যবহার করা হবে। বিকেল ৫টায় সিপিসি প্রেস কর্ণারে এবিষয়ে সংবাদ সম্মেলন করে সাংবাদিকদের অভিহিত করা হবে।

এছাড়া সন্ধ্যায় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় আনন্দ সন্ধ্যার আয়োজন করা হয়েছে বলে সংসদ সচিবালয় সূত্রে জানান হয়েছে।