চায়না ওপেনের শিরোপা জিতলেন নাদাল

আগের সংবাদ

খুশকি তাড়াতে মাউথওয়াশ!

পরের সংবাদ

সংসদ ভেঙে দিয়ে নির্বাচনকালীন সরকার গঠন ও সেনা মোতায়েনের প্রস্তাব জাতীয় পার্টির

প্রকাশিত হয়েছে: অক্টোবর ৯, ২০১৭ , ৪:০৬ অপরাহ্ণ | আপডেট: অক্টোবর ৯, ২০১৭, ৪:১৭ অপরাহ্ণ

এন রায় রাজা

এন রায় রাজা

সিনিয়র রিপোর্টার

তফসিল ঘোষনার আগে জাতীয় সংসদ ভেঙে দিয়ে সব দলের সমন্বয়ে একটি নির্বাচনকালীন সরকার গঠন করে তার অধীনে জাতীয় নির্বাচনের প্রস্তাব করেছে জাতীয় পার্টি-জাপা। সেই সাথে নির্বাচনে সেনা বাহিনী নামানোরও দাবি জানিয়েছে দলটি। আজ মঙ্গলবার সকালে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে সংলাপে অংশ নিয়ে এসব দাবি জানায় দলটি।
ইসির কনফারেন্স রুমে আয়োজিত এ সংলাপে সভাপতিত্ব করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন, অন্য ৪ কমিশনার , ভারপ্রাপ্ত সচিব ও ইসির উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা। আর জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হোসাইন মোহম্মদ এরশাদের নেতৃত্বে ১৮ সদস্যের এক প্রতিনিধি দল সংলাপে অংশ নেয়।
সংলাপ শেষে এরশাদ বলেন, আমরা বলেছি, নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে গেলে তফসিলের আগে সংসদ ভেঙে দিয়ে সংসদে প্রতিনিধিত্ব রয়েছে এমন দলগুলোকে নিয়ে একটি নির্বাচনকালীন সরকার গঠন করতে হবে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, যেহেতু বিএনপির দশম জাতীয় সংসদে কোন প্রতিনিধি নেই, তাই এ সরকারে তারা আসতে পারবে না। তবে বিএনপি আগামী নির্বাচনে অংশ নেবে বলে আমরা আশা করি। এছাড়া স্বরাষ্ট্র, এলজিইডিসহ তিনটি মন্ত্রণালয় ইসির হাতে নেবারও প্রস্তাব দিয়েছে জাপা। এরশাদ বলেন, সিইসি অতীব গুরুত্ব দিয়ে তাদের কথা শুনেছেন এবং সুষ্ঠু ও গ্রহনযোগ্য নির্বাচনের জন্য যা করা প্রয়োজন তা করবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।
দলটির অন্য দাবি গুলোর মধ্যে রয়েছে, সকলের জন্য সমান লেবেল প্লেয়িং ফিল্ড ঠিক রাখা, নির্বাচনে কালোটাকা ও পেশী শক্তির ব্যবহার রোধ, প্রবাসীদের ভোটার তালিকায় অন্তর্ভূক্ত করা ইত্যাদি।
সাংবাদিক রোহিঙ্গা বিষয়ক এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সরকার রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে মিয়ানমারের সঙ্গে কথা চাণিয়ে যাচ্ছে। তবে রাশিয়া, ভঅরত চীনসহজ বেশ কয়েকটি দেশ এ বিষয়ে আমাদেরকে সহায়তা করছে না। তবে আমাদের প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, প্রয়োজনে কম খেয়ে হলেও রোহিঙ্গা ভঅই বোনদের যতদুর সম্ভব দেখবো। আশা করি রোহিঙ্গা সমস্যা মিটে যাবে বলেও জানান তিনি।